টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

পর্যটকদের জন্য দুঃসংবাদ! আচমকাই দার্জিলিংয়ে বন্ধ হচ্ছে টয় ট্রেন পরিষেবা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : বর্ষাকালে যারা দার্জিলিং যাওয়ার প্ল্যান করছেন তাদের জন্য সত্যি মন খারাপ করে দেওয়ার মতো খবর। বৃষ্টি ভেজা পাহাড়ের কোল বেয়ে যে সকল পর্যটকদের ভেবেছিলেন শিলিগুড়ি থেকে টয় ট্রেনে করে চলে যাবেন দার্জিলিং তাদের জন্য বলে রাখা ভালো কিছুদিনের জন্য বন্ধ থাকবে টয় ট্রেন পরিষেবা।

দার্জিলিংয়ে এখন অফ সিজন। বছরের অন্যান্য সময়ের মতো এই সময়টাতে দার্জিলিংয়ের আকাশে দেখা যায় না নীল আকাশের ছাদ। মেঘের আধিক্যের জন্য ফিকে হয়ে যায় কাঞ্চনজঙ্ঘার আভা। কিন্তু তার মধ্যে অনেক পাহাড় প্রেমই আছেন যারা এই সময়টাতে তাদের ডেস্টিনেশন হিসেবে বেছে নেন দার্জিলিংকে। আবছা দিনের আলোয় পাহাড়ের কোলে টয়ট্রেন করে তারা পৌঁছে যেতে চান শৈল শহরে। সেইসব মেঘ প্রেমী মানুষদের কাছে যে এটি একটি দু:সংবাদ তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

এই বছর থেকে যাত্রা শুরু করেছে ভিস্তাডোম কোচ যুক্ত টয় ট্রেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় ধরা পড়েছে নানান যান্ত্রিক ত্রুটি। তাই তড়িঘড়ি সেই ত্রুটি মেরামত করার জন্য কার্শিয়াং থেকে ঘুম পর্যন্ত চলবে সারাইয়ের কাজ। এর ফলে ৫ ই আগস্ট থেকে ৭ ই আগস্ট পর্যন্ত নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে দার্জিলিং এবং দার্জিলিং থেকে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন পর্যন্ত টয় ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কিছুদিন পর থেকেই শুরু হবে পুজোর সিজন। তখন ধীরে ধীরে দার্জিলিঙে বৃদ্ধি পাবে পর্যটকের সংখ্যা। সেই কথা মাথায় রেখে রেল কর্তৃপক্ষ এই অফ সিজেনেই মেরামতির কাজ সম্পন্ন করতে চাইছে।

প্রসঙ্গত ১৮৮১ সাল থেকে শুরু হয় টয় ট্রেন পরিষেবা। ১৯৯৯ সালে এই টয় ট্রেন কে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো। দার্জিলিং এ পর্যটকদের কাছে চিরকালই এক অন্যতম আকর্ষণের বিষয় এই টয় ট্রেন। তাই এই সময় যে সকল পর্যটকেরা দার্জিলিংয়ে যাবেন তাদের যে খানিকটা হলেও আফসোস হচ্ছে তা নিঃসন্দেহে বলা যায়।

Related Articles

Back to top button