টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

খুন করার কী দরকার ছিল? কাশ্মীরে পাঁচ শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুলে প্রশ্ন মমতার

বাংলা হান্ট ডেস্ক : মঙ্গলবার রাতে কাশ্মীরের কুলগাম এলাকায় জঙ্গি হানায় নিহত হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের পাঁচ জন বাঙালি শ্রমিক৷ শ্রমিকদের মৃত্যুর ঘটনায় ইতিমধ্যে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গড়ার আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তবে ওই পাঁচ শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য রাজনৈতিক অন্দরে ব্যাপক চাপান উতোর তৈরি হয়েছে৷ এক দিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাঠগড়ায় তুলেছেন অন্য দিকে এই ঘটনায় কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুলে প্রশ্ন ছুড়লেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাশাপাশি তদন্তের দাবি জানালেন৷

এমনিতেই বুধবার গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর পর বৃহস্পতিবার আরও এক ধাপ উঠে খুনের কারণ নিয়ে প্রশ্ন তুললেন তিনি৷ ঘটনাটিকে পূর্ব পরিকল্পিত খুন বলে আখ্যা দেন তিনি পাশাপাশি কাশ্মীরে কোনও রাজনৈতিক দল নেই তাই প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে৷ তাই সুরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার থাকার সত্ত্বেও কী ভাবে খুন করা হল শ্রমিকদের? প্রশ্ন তোলেন মমতা একই সঙ্গে ঘটনার জন্য তিনি স্তম্ভিত ও ব্যথিত বলেও জানান৷

যদিও বুধবার টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছিলেন পাঁচ নিরাপরাধ শ্রমিককে পূর্ব পরিকল্পনা করে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে আমি ব্যথিত৷ এ দিন কয়েক কদম এগিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী ঘটনার পূর্ণ তদন্তের দাবি জানিয়ে আসল সত্যিটা যাতে বেরিয়ে আসে তার চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন৷

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার মুর্শিদাবাদে নিহত পাঁচ বাঙালি শ্রমিকের দেহ এসে পৌঁছয় বাড়িতে৷ শোকের ছায়া মুর্শিদাবাদের সড়ক নগর এলাকায়, যদিও নিহতদের পরিবার পিছু আর্থিক ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

Back to top button