টাইমলাইনরাজনীতিআন্তর্জাতিক

নরেন্দ্র মোদীকে ব্যক্তিগত আক্রমন করেছিলেন, তাই ইমরানকে ধমকি দিলো আমেরিকা

কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ক্রমশই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক উত্তপ্ত হচ্ছে। আর এবার সেই সম্পর্ক একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। কাশ্মীর পাকিস্তানের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে দাবি করে আসছিল দীর্ঘদিন ধরেই। তাই কাশ্মীরের ভারতভুক্তির ঘোষণায় কার্যত ক্ষেপে উঠেছে পাকিস্তান।তাই আন্তর্জাতিক মহলে বার বার ভারতকে কোনঠাসা করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান। একের পর এক হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছে ভারতকে। পরমানু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি থেকে শুরু করে সীমান্তে লাগাতার গোলাগুলি চালাচ্ছে পাকিস্তান। এবার কাশ্মীর নিয়ে ভারত কোনো পদক্ষেপ না নিলে গোটা বিশ্বকে ফল ভুগতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল পাকিস্তান। ইসলামাবাদের তরফ থেকে এই হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর জবাব এল আমেরিকার পক্ষ থেকে। ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতের তরফ থেকে সরাসরি ইমরানকে ধমক দেওয়া হল। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে ইমরান সরকার অযথা বেশি বারাবারি করছে বলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ক্রমাগত চাপ দিচ্ছেন বলে জানান মার্কিন রাষ্টদূত টিম রোমার।

উল্লেখ্য, বারবার আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতের বিরোধিতা করে একঘরে করে দিতে চাইছে পাকিস্তান। কিন্তু বার বার কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রসংঘ থেকে রাষ্ট্রপুঞ্জে মুখ থুবড়ে পড়েছে পাকিস্তান। বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলি কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ইমরান খানের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আমেরিকা থেকে ফ্রান্স, রাশিয়া, ব্রিটেন একযোগে কাশ্মীর আভ্যন্তরীন বিষয় তাই এতে হস্তক্ষেপ না করার কথা জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, কাশ্মীরের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে ইতিমধ্যেই ইমরান খান গোটা পাকিস্তান জুড়ে কাশ্মীর আওয়ার পালন করছেন। এবং কাশ্মীর সমস্যা সমাধানের জন্য যতদূর যেতে হয় ততদূর যাওয়ার কথাও জানিয়েছেন।

Back to top button