টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

একেই বলে রাজনীতি! অমিত শাহের সফরের দিনে রাজ্য সরকারের চাকরি পেলেন গীতা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ একদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বাঁকুড়া সফরে রয়েছেন, অন্যদিকে গীতা মাহালি (Gita Mahali) পেলেন রাজ্য সরকারের তরফ থেকে সরকারী চাকরীর নিয়োগপত্র। ২০২০ সালের মত ঠিক এভাবেই, ২০১৭ সালে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে অমিত শাহ মধ্যাহ্নভোজ সেরেছিলেন গীতা মাহালির বাড়িতে।

বাঁকুড়া সফরে অমিত শাহ
কলকাতায় পা রেখে বুধবার রাতটুকু কাটিয়েই বৃহস্পতিবার বাঁকুড়া সফরে গিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit shah)। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আগমনের তোরজোড় শুরু হয়েছিল বহু আগে থেকেই। বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময়েই বাঁকুড়ায় পৌঁছেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

বাঁকুড়ার আদিবাসী প্রধান চতুরডিহি গ্রামে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জন্য সবরকম আয়োজন করা হয়েছিল। বাঁকুড়া-১ ব্লকের চতুরডিহি গ্রামে বিজেপি কর্মী বিভীষণ হাঁসদার বাড়িতে দুপুরে আহার গ্রহণ করেছেন তিনি। মেনুতে ছিল ভাত, ডাল, পোস্ত আর চাটনি। তাঁর সঙ্গে সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির আরও উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা।

রাজ্য সরকারের চাকরি পেলেন গীতা মাহালি
২০১৭ সালে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়েছিলেন বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তখন ঠিক একই ভাবে এক আদিবাসী বাড়িতে দুপুরের খাবার সেরেছিলেন তিনি। ৩ বছর পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বাঁকুড়া সফরে আদিবাসী বাড়িতে আহার গ্রহণের দিন, উত্তরবঙ্গের সেই আদিবাসী মহিলা গীতা মাহালির কাছে পৌঁছে গেল রাজ্য সরকারের তরফ থেকে হোমগার্ডের চাকরির নিয়োগপত্র।

গীতা মাহালির অভিযোগ
রাজ্য সরকারের তরফ থেকে সরকারী চাকরীর নিয়োগপত্র হাতে নিয়ে গীতা মাহালি (Gita Mahali) জানিয়েছেন, ৩ বছর আগে অমিত শাহ তাঁর বাড়িতেই মধ্যাহ্ন ভোজ সেরেছেইলেন। কিন্ত ৩ বছর কেটে গেলেও তাঁদের কোনও খোঁজ নেয়নি বিজেপি। উল্টে তৃণমূলই সব সময় তাদের পাশে থেকেছে।

বিজেপির জবাব
এবিষয়ে বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, অমিত শাহ-সহ বিজেপি নেতৃত্বদের মাহালি পরিবারই মধ্যাহ্নভোজনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। অমিত শাহ সেখান থেকে চলে যাওয়ার পরই তৃণমূল নেতা গৌতম দেব ওই পরিবারটিকে সেখান থেকে তুলে নিয়ে আসে। তাদের তৃণমূলে যোগদান করিয়ে বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করছে ওরাই। তবে এভাবে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষের বাড়িতে অন্নগ্রহণ করার পর যদি তৃণমূলের তরফ থেকে তাঁকে চাকরী দেওয়া হয়, তাহলে খুবই ভালো কথা।

Back to top button