fbpx
আন্তর্জাতিকটাইমলাইনবাংলাদেশ

ধৈর্য ও সাহসের সাথে করোনা মোকাবিলায় দেশবাসীকে আহ্বান জানালেন হাসিনা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বিশ্বব্যাপী মহামারির আকার নিয়েছে করোনা। চীনের উহান প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসে আক্রান্ত বাংলাদেশও। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় সেখানে চলছে করোনা প্রতিরোধের চেষ্টা। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে ধৈর্য ও সাহসের সাথে পরিস্থিতি মোকাবিলার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস (Corona Virus)’র মোকাবিলা যুদ্ধে জনগনের দায়িত্ব ঘরে থাকা। সকলের মিলিত প্রচেষ্টায় জয়ী হওয়া সম্ভব । সংকটের সময়ে দেশের প্রত্যেক নাগরিকদের সহনশীল এবং সংবেদনশীল হতে হবে। মারণ করোনা ভাইরাসের কারণে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়েছেন। তাঁদের পাশে দাঁড়াতে হবে। গরিব মানুষদের ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় নিজ নিজ গ্রামে সহায়তা প্রদান করা হবে। গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর, ৬ মাসের খাদ্য এবং নগদ অর্থ প্রদান করা হবে সরকারের পক্ষ থেকে।
পাশাপাশি, তিনি কালোবাজারি রুখতেও সচেষ্ট হয়েছেন, বলেছেন ‘কেউ সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করবেন না। বাজারে কোনও পণ্যের ঘাটতি নেই। দেশের অভ্যন্তরে এবং বাইরের সঙ্গে সরবরাহ চেন অটুট রয়েছে। অযৌক্তিকভাবে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি করবেন না। জনগণের দুর্ভোগ বাড়াবেন না।’

করোনায় বিশ্বব্যাপী সৃষ্টি হওয়া আতঙ্কের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গোটা বিশ্ব এখন বিপর্যস্ত। ‌ধনী বা দরিদ্র, উন্নত বা উন্নয়নশীল, ছোট বা বড়। সব দেশই আজ কমবেশি নোভেল করোনা নামে এক ভয়ংকর ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত। আমাদের প্রাণপ্রিয় বাংলাদেশও এই সংক্রমণ থেকে মুক্ত নয়।’

প্রসঙ্গত, সারা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া কমুনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ রোগে ইতিমধ্যে বিশ্বে ১৮ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু ঘটেছে। সারা বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা চার লাখ ছাড়িয়েছে। চীন, ইটালি, আমেরিকার মতো দেশগুলো বিপর্যস্ত। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়েছে ৩৯ জন ও মারা গেছেন পাঁচজন।

Back to top button
Close
Close