টাইমলাইনবিনোদন

বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে জড়াতে চাননি, বিয়ের পর ধর্মেন্দ্রর প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে দেখাও করেননি হেমা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বলিউডের আইকনিক জুটিদের মধ‍্যে অন‍্যতম ধর্মেন্দ্র (dharmendra) ও হেমা মালিনী (hema malini)। পর্দার বীরু ও বসন্তী বাস্তবেও স্বামী স্ত্রী হয়ে ওঠেন। ১৯৮০ সালে ধর্মেন্দ্রর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন রেখা। তবে ধর্ম পরিবর্তন করে দুজনের বিয়ে হয়। হেমা মালিনীর সঙ্গে দ্বিতীয় বারের জন‍্য বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ধর্মেন্দ্র।

এর আগে ১৯৫৪ সালে প্রকাশ কউর এর সঙ্গে খ্রিস্টান রীতিতে বিয়ে করেন ধর্মেন্দ্র। সেই সময় তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৯ বছর। কিন্তু তাঁকে বিচ্ছেদ না দিয়েই হেমা মালিনীকে বিয়ে করেন অভিনেতা। তাঁদের চার ছেলে মেয়েও হয়, অজয় সিং (সানি), বিজয় সিং (ববি), অজেতা দেওল ও বিজেতা দেওল।


শোনা যায় প্রথমে একজন বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়াতে চাননি হেমা। কিন্তু ধর্মেন্দ্রর প্রেমে পড়ে নিজের অনুভূতির উপর নিয়ন্ত্রণ হারান তিনি। কিন্তু ধর্মেন্দ্রর প্রাক্তন স্ত্রীর ব‍্যাপারেও মন্তব‍্য করেছেন তিনি। নিজের জীবনীতে এই ব‍্যাপারে মন্তব‍্য করেছেন হেমা। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ধর্মেন্দ্রর অপর পরিবারের সঙ্গে তাঁর কখনো দেখা হয়নি। কারণ তাঁদের বিরক্ত করতে চাননি তিনি।

এক সাক্ষাৎকারে প্রকাশের ব‍্যাপারে হেমা বলেন, “ধরম জিকে আমি বিয়ে করেছিলাম ঠিকই কিন্তু আমি চাইনি এতে কারোর জীবন নষ্ট হয়ে যাক। ওঁর প্রথম স্ত্রী বা তাঁদের সন্তানরা কখনো তাঁদের জীবনে আমার হস্তক্ষেপ অনুভব করেননি। আমি প্রকাশের ব‍্যাপারে কখনোই কথা বলিনি, কিন্তু আমি ওঁকে খূব শ্রদ্ধা করি।”


তিনি আরো জানান, বিয়ের পরেও কখনো প্রথম পরিবারের থেকে ধর্মেন্দ্রকে আলাদা করেননি হেমা। উপরন্তু তিনি আরো বলেন, এই বয়সে এসেও একে অপরের খেয়াল রাখেন তাঁরা দুজনে। নিজেদের ব‍্যাপারে বলতে গিয়ে হেমা মালিনী বলেন, “আমি যখন প্রথম দেখি ওঁকে তখনি বুঝে গিয়েছিলাম ও শুধু আমার জন‍্যই। আমি তখনি ঠিক করে নিয়েছিলাম যে এই মানুষটার সঙ্গেই আমি জীবন কাটাবো।” এখনো পর্যন্ত বলিউডের সুপারহিট জুটিদের মধ‍্যে অন‍্যতম ধর্মেন্দ্র হেমার জুটি।

Related Articles

Back to top button