টাইমলাইনভারতরাজনীতি

খনি দুর্নীতি মামলায় ED-র দফতরে হেমন্ত সোরেন! ‘সরকার ফেলে দেওয়ার চক্রান্ত হচ্ছে’! দাবি JMM সুপ্রিমোর

বাংলাহান্ট ডেস্ক : অবশেষে ইডি দফতরে হাজির হলেন হেমন্ত সোরেন (Hemant Soren)। ঝাড়খণ্ডের বেআইনি কয়লা খনি সংক্রান্ত আর্থিক দুর্নীতি প্রসঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই ইডির নজরে ছিলেন ঝাড়খণ্ডের (Jharkhand) মুখ্যমন্ত্রী। এই নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। হেমন্ত সোরেন নিজে দাবি করেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ মিথ্যা। কিন্তু জানা যাচ্ছে, আজকে ঝাড়খণ্ডে আর্থিক তছরূপের অভিযোগে হেমন্ত সোরেনকে ইডি (Enforcement Directorate) জিজ্ঞাসাবাদ করবে। ঝাড়খণ্ডের ক্ষমতাসীন দল ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা কর্মীরা হেমন্ত সোরেনের প্রতি সমর্থন জানাতে ইতিমধ্যেই ভিড় জমিয়েছে রাঁচিতে। এমনকি এই জিজ্ঞাসাবাদের কারণে ইডি অফিসেও নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

সূত্রের খবর, আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারোটা নাগাদ রাঁচিতে অবস্থিত ইডি অফিসে হাজিরা দিতে আসেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন। ইতিমধ্যেই, অবৈধ খনি কেলেঙ্কারি সূত্রে ইডি আগেই গ্রেফতার করেছে এই মামলায় হেমন্ত সোরেনের সহযোগী পঙ্কজ মিশ্র সহ তিনজনকে। ইডির চার্জশিটে বলা হয়েছে, অন্তত হাজার কোটি টাকার এই কেলেঙ্কারি।

ইডির অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, গত জুলাই মাসে পঙ্কজ মিশ্রের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে হেমন্ত সোরেনের স্বাক্ষরিত এবং স্বাক্ষরবিহীন বহু চেক। প্রসঙ্গত ইডি দ্বিতীয়বার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেমন্ত সোরেনকে সমন পাঠায়। প্রথমবার ইডির ডাকে অবশ্য সাড়া দেননি ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী। এবার তিনি কি করতে চলেছেন সেদিকে অবশ্যই নজর রাখছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিন দফতরে ঢোকার আগে সংবাদমাধ্যমকে হেমন্ত সোরেন বলেন, ‘ঝাড়খণ্ডে যে খনি কেলেঙ্কারির দাবি ইডি করছে সেই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই আমাকে ডেকেছে। ইডির দাবি প্রায় ১০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। তবে আমি আগেই চিঠি পাঠিয়ে জানিয়েছি সাহেবগঞ্জে যে ১০০০ কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ উঠে আসছে তা অতন্ত দুঃখজনক। এরই সঙ্গে হেমন্ত দাবি করেন, আদিবাসী সম্প্রদায়ের উন্নতি করা তাঁর সরকারকে ফেলে দেওয়ার চক্রান্ত চলছে।

Related Articles