টাইমলাইনভারতরাজনীতি

উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, গোয়া, মণিপুর ও উত্তরাখণ্ড এই পাঁচটি রাজ্যে নির্বাচনে কত খরচ করেছে বিজেপি, প্রকাশ্যে এল তথ্য

বাংলাহান্ট ডেস্ক: চলতি বছরে দেশের পাঁচ রাজ্যে হয়েছে বিধানসভা নির্বাচন (Assembly Election) । উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, গোয়া, মণিপুর ও উত্তরাখণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি-র মোট খরচ হয়েছে ৩৪৪.২৭ কোটি টাকারও বেশি। নির্বাচন কমিশনের কাছে রাজনৈতিক দলগুলির জমা দেওয়া ভোটের খরচের তথ্য থেকে এমনটাই জানা যাচ্ছে। এই পাঁচ রাজ্যে গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি-র খরচ ছিল ২১৮.২৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ, গত বারের চেয়ে এ বারের ভোটে প্রায় ৫৮ শতাংশ বেশি খরচ করেছে বিজেপি।

ওই পাঁচ রাজ্যে ভোটের খরচ বৃদ্ধির হিসেবে অবশ্য বিজেপি-কেও হার মানিয়েছে কংগ্রেস। গত বিধানসভা ভোটে সেখানে তাদের খরচ হয়েছিল ১০৮.১৪ কোটি টাকা। এ বছর সেই নির্বাচন লড়ার খরচ বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ১৯৮.৮০ কোটি টাকায়। অর্থাৎ গতবারের তুলনায় প্রায় ৮০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে ভোটে লড়ার খরচ।

নিয়ম অনুযায়ী, লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর থেকে ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত সমস্ত খরচের হিসেব রাখতে হয় রাজনৈতিক দলগুলিকে। এছাড়াও অনুদানের হিসেবও রাখতে হয় তাদের। বিধানসভা ভোট শেষ হওয়ার ৭৫ দিন ও লোকসভা নির্বাচন শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে এই হিসেব জমা দিতে হয় নির্বাচন কমিশনের কাছে। 

চলতি বছর পাঁচ রাজ্যে হওয়া বিধানসভা নির্বাচনের খরচ বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে যে বিজেপি সবচেয়ে বেশি টাকা খরচ করেছে উত্তরপ্রদেশে। সেখানে ২২১.৩২ কোটি টাকা খরচ করেছে তারা। উল্লেখ্য, গত নির্বাচনে এই সংখ্যা ছিল ১৭৫.১০ কোটি টাকা। গত বারের তুলনায় প্রায় ২৬ শতাংশ বেশি খরচ করেছে বিজেপি।

যদিও তুলনামূলক ভাবে এই খরচ তারা সবচেয়ে বেশি বাড়িয়েছে পাঞ্জাব ও গোয়ায়। ২০১৭ সালের বিধানসভা নির্বাচনে পাঞ্জাবে তারা খরচ করেছিল ৭.৪৩ কোটি টাকা। এ বারের ভোটে তারা খরচ করেছে ৩৬.৭০ কোটি টাকা। অর্থাৎ প্রায় পাঁচ গুণ বেশি টাকা খরচ করেছে তারা। যদিও এই বিধানসভায় তারা মাত্র দু’টি আসন জিততে পেরেছে।

অন্যদিকে, গত বার গোয়াতে তাদের ভোটের খরচ হয়েছিল ৪.৩৭ কোটি টাকা। এ বছরের নির্বাচনে তারা সেই খরচ বাড়িয়েছে ১৯.০৯ কোটি টাকায়। মণিপুরে ৭.৮৬ কোটি থেকে বাড়িয়ে ২৩.৫২ কোটি এবং উত্তরাখণ্ডে ২৩.৪৮ কোটি থেকে বাড়িয়ে ৪৩.৬৭ কোটি টাকা খরচ হয়েছে বিজেপি-র। এর মধ্যে বেশিরভাগটাই খরচ হয়েছে নেতাদের যাতায়াত, মিছি, সভা ও প্রচারের ক্ষেত্রে। ভার্চুয়াল প্রচার করায় খরচ হয়েছে প্রায় ১২ কোটি টাকা।

জানা গিয়েছে, এ বছর ৮ জানুয়ারি ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর থেকে ১২ মার্চ ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত বিজেপি-র কেন্দ্রীয় ও সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির দফতরের তহবিলে জমা পড়েছিল মোট ৯১৪ কোটি টাকারও বেশি। অন্যদিকে, কংগ্রেসের সংগ্রহে ছিল মোট ২৪০.১০ কোটি টাকা। ভার্চুয়াল প্রচারে মোট ১৫.৬৭ কোটি টাকা খরচ করেছিল তারা। 

Related Articles