fbpx
টাইমলাইনরাজনীতি

চ্যালেঞ্জ করলাম বিজেপি বাংলায় ২৫ টা সিট ও পাবে না : জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক !

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা থেকে আমফান নিয়ে বাংলায় দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে বহুবার। এই নিয়ে শাসক দল এবং বিরোধী দলের মধ্যে কখনো মখোমুখি তো কখনো আড়ালে। কিন্তু এবার সরাসরি রেশন দুর্নীতি নিয়ে অভিযোগ করলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা (Rahul Sinha) ।

রাহুল সিনহা বলেন, ইতিমধ্যে ত্রান নিয়ে চরম দলভারী চলছে। ত্রান নিয়ে পুরোপুরি লুঠ চলছে। আর ত্রান নিয়ে বিজেপি যখন কিছু বলছে তখন তৃণমূলের তরফে বলা হচ্ছে যারা ত্রান নিয়ে নয়ছয় করছে, বা ত্রানের চালা ডাল চুরি করছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, ত্রান দুর্নীতি নিয়ে খাদ্যমন্ত্রী হোল দপ্তরের লুঠকে ধামা চাপা দিতে চাইছে। এ যেন শুরির সাক্ষী মাতাল। যিনি কদিন আগেও রেশন দোকানে হাহাকার তৈরি করে দিয়েছিল, মোদীজির পাঠানো চাল গম কেউ পেল না। সেগুলিকে লুঠ করানো হয়েছে। সাধারন মানুষ চাল-গম পেলো না। যে খাদ্যমন্ত্রীকে অপসারণ করা উচিত, সেই খাদ্যমন্ত্রীকে খাদ্য দপ্তর থেকে বাদ দিয়ে দেওয়া উচিত। আর সেই খাদ্যমন্ত্রী চিৎকার করছে, মিথ্যা মামলার লড়াই করছে।

তিনি বলেন, তৃণমূল পার্টি  যদি চান একটি  কম্পিটিশন হোক। জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক আমি বলছি যে, যবে থেকে লকডাউন শুরু হয়েছে তবে থেকে আজ পর্যন্ত কলকাতা বাসিন্দারা অর্থাৎ ধর্মতলার রাস্তায় ত্রানের ছবি দিয়ে একটা কম্পিটিশন করুন দেখুন কারা এগিয়ে।

আপনাদের নেতা-মন্ত্রীরা মুখে প্লাস্টিক, হাতে প্লাস্টিক, সারা গায়ে প্লাস্টিক দিয়ে নিজেকে পুরোপুরি ঢেকে ফেলেছে, তাঁরা নাকি আবার ত্রান বিলি করবে? আর আমাদের দেখুন দেখুন বিজেপি নেতাদের দেখুন আমরা এসব পড়ি না। সেই কারণের জন্য গোটা পার্টি আর যদি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলছে তা নিয়ে দুর্নীতি হয়নি যদি দূর্নীতি নাই হত মুখ্যমন্ত্রী যারা প্রাণ পেয়েছে তাদের নাম বিডিও অফিসে জানাতে হতো না আমি মুখ্যমন্ত্রী কাছে দাবি জানাচ্ছি যে, যারা ত্রান পেয়েছে তাদের নাম পাঠাতে, এবং যারা চালিয়ে দিচ্ছে তাদের সমস্ত আধিকারিকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাহুল সিনহার মন্তব্যকে ঘিরে কটাক্ষ করলেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক (Jyotipriya Mallick)। তিনি বলেন, বিজেপি ব্যক্তিগত আক্রমণের পথে হাঁটে। বিজেপির কথায় উত্তর দিতে আমার লজ্জা লাগে। একটা কথা বলি শুনুন ভারতীয় জনতা পার্টির রাজনীতি পাগলের দল, রাজনীতির জন্য ওরা উন্মাদ হয়ে গেছে। এই দলের কাছে বাংলা দিলীপ ঘোষ মানুষ খুন করে দেব এমনও কথা বলেন। আমি অনুরোধ করব এদের চিকিৎসা করানো উচিত।

এদের চিকিৎসা করানো এরা পাগল এটা কি করছে জানেন বিভিন্ন জায়গায় সভা করছে। প্রবাদ আছে, একটা মুরগির একটি ছানা, কিন্তু সে বারবার করে একটি ছানাকেই দেখিয়ে ১০ টি ছানা বলছে এমনই অবস্থা বিজেপির। আমি বলে রাখছি, নরেন্দ্র মোদী ২৯৪ টা মিটিং করুক, আর অমিত শাহ ২৯৩ টি মিটিং করুক ওরা ২৫ টি সিটও পাবে না। আমি রাজনৈতিক সন্ন্যাস হব। চ্যালেঞ্জ করলাম, আমি জিতবই। আমার সন্দেশখালি, বসিরহাট, হিঙ্গলগঞ্জ, মিনাখা এদের এখানে ১৫-৩০ বস্তা করে ত্রান নৌকা করে নিয়ে গিয়েছি। ১ কেজি করেও চাল দেয়নি বিজেপি।

তিনি আরও বলেন, আবার চ্যালেঞ্জ করছি, আমরাই জিতব। বিজেপি হচ্ছে অভদ্র, চিটিংবাজ। আর রাহুল সিনহাকে বলুন বাড়িতে জোকারের মত বসে থাকতে। অলিম্পিক সার্কাসে যোগদান করতে। মমতা ব্যানার্জির সাথে লড়াই করবে। আগে আমার সঙ্গে লড়াই করতে বলুন।

 

Back to top button
Close
Close