টাইমলাইনভারত

মুমূর্ষু রোগীর প্রাণ বাঁচাতে নিজের কিডনি দান করেছিলেন কলকাতার মহিলা, চিঠি লিখে ভূয়সী প্রশংসা করলেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একদা বলেছিলেন ‘অঙ্গদান মহাদান”। আর সেই কথায় প্রভাবিত হয়ে নিজের কিডনি দান করে এক মুমূর্ষু রোগীর প্রাণ বাঁচালেন কলকাতার মানসী হালদার (৪৮)। ওনার এই কাজে প্রভাবিত হয়ে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ওনাকে চিঠি লেখেন। প্রধানমন্ত্রীর চিঠি পেয়ে আপ্লুত মানসী হালদার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মানসী হালদারকে নিজের কিডনি দান করার জন্য প্রশংসা করে বলেন, আপনার এই নিঃস্বার্থ সেবার যতটা প্রশংসা করা যায়, ততই কম।

মানসী হালদার প্রধানমন্ত্রীর একটি ভাষণ শুনেছিলেন। যেখানে প্রধানমন্ত্রী অঙ্গদানকে মহৎ দান বলেছিলেন। আর প্রধানমন্ত্রীর সেই কথায় প্রভাবিত হয়ে ২০১৪ সালে মানসী হালদার নিজের একটি কিডনি একটি অনাথ ব্যক্তিকে দান করেছিলেন। কয়েকমাস আগে মানসীদেবী একটি চিঠি লিখে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে এই বিষয়ে অবগত করান। আর সেই চিঠির জবাবে প্রধানমন্ত্রী নিজেও মানসীদেবীকে একটি চিঠি লেখেন।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, ‘আপনি একজন মানুষের জীবন বাঁচাতে নিজের কিডনি দান করেছেন শুনে আমার মন ভরে গিয়েছে। এই নিঃস্বার্থ সেবার যত প্রশংসা করা যায়, ততই কম। ত্যাগ আর সেবার ভাব আমাদের সংস্কৃতির অঙ্গ।” প্রধানমন্ত্রী বলেন, অঙ্গদান মহৎ দান। কারণ অঙ্গ পাওয়া ব্যক্তি এরফলে নতুন জীবন পায়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে এরকম লক্ষ লক্ষ মানুষ আছে যাদের বেঁচে থাকার অধিকার আছে। আর এরথেকে বড় দান কিছুই হতে পারে না।

প্রধানমন্ত্রী লেখেন, ‘আপনার সেবাভাব সবার জন্য প্রেরণাদায়ক। এরফলে অনেকেই প্রভাবিত হবে আর এতে অঙ্গদান করার জন্য মানুষ আরও বেশি করে এগিয়ে আসবে।” প্রধানমন্ত্রী অঙ্গদানে আরও সচেতনতার জন্য বলেন, অঙ্গদানকে জন আন্দোলন বানিয়ে আরও মানুষের সাহায্য করা যেতে পারে। মানসী হালদার জানান, কিডনি দান করার পর আমি সুস্থ আছি। আর যাকে দান করেছি সেও সুস্থ আছে।

Back to top button