টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

মমতা ব্যানার্জী না থাকলে তো মিউনিসিপ্যালিটিতে আলু বিক্রি করতে হত রে, নাম না করেই শুভেন্দুকে আক্রমণ কল্যাণের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ শুভেন্দু অধিকারীকে (suvendu adhikari) নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরেই তৃণমূলের অন্দরে জল্পনা তুঙ্গে। এবার নাম না করেই কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (kalyan banerjee) আক্রমণ করলেন শুভেন্দু অধিকারীকে। বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই দলের সঙ্গে দূরত্ব, দলকে না জানিয়েই সমাবেশে শুভেন্দুর যোগ দেওয়ায়, ভালোভাবেই টনক নড়েছে সবুজ শিবিরের।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছেন, ক্রমাগত ফিরহাদ হাকিম, পুর্ণেন্দু বসু, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের আক্রমণের শিকার হয়েই তৃণমূলের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর আত্মসম্মানে আঘাত লেগেছে বলেই নাকি এই দূরত্ব। প্রশান্ত কিশোর সম্প্রতি তাঁর বাড়িতে গেলেও, তাঁর সঙ্গে দেখাঁ হয়নি। ফোন মারফত সৌজন্য বিনিময় হয়েছে।

নাম না করেই আক্রমণ
কয়েকদিন আগেই নন্দীগ্রাম ইস্যুতে শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে, আবারও বৃহস্পতিবার নাম না করেই মেদিনীপুরের তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বললেন, ‘বিজেপিতে যাক আর কংগ্রেসে যাক, আমাদের কোন অসুবিধা নেই। সিপিএমে গেলেও যেতে পারে। ‘দাদার অনুগামী তো’, তাহলে দাদার সঙ্গেও যেতে পারে। কোন সমস্যা নেই। কিন্তু বেইমানি করলে আর বাড়ি ঢুকতে দেব না’।

কটাক্ষ করলেন শুভেন্দু অধিকারীকে
এখানেই থামলেন না শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আরও বললেন, ‘কত বড় হিম্মত হয়েছে, সেটা দেখতে চাই। এখানে দাঁড়িয়েই দেখব, দাদার অনুগামী কজন রয়েছে? লড়াইয়ের মাঠে এক ইঞ্চিও জমি না ছেড়ে, বেইমানদের ঠিক বুঝিয়ে দেব। ৪ টে মন্ত্রীত্ব পেয়ে মমতা ব্যানার্জী নামক গাছের তলায় বড় হয়েছিস রে। মমতা ব্যানার্জী না থাকলে তো মিউনিসিপ্যালিটিতে আলু বিক্রি করতে হত রে’।

Back to top button