টাইমলাইনভারতআন্তর্জাতিক

জ্বালানির দাম কমাতেই মোদি সরকারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইমরান খান, দিলেন অবাক করা বয়ান

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ফের একবার ভারতের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে উঠলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর থেকেই প্রতিবেশী দেশকে নিয়ে একাধিকবার প্রশংসাসূচক মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে ইমরানকে। আর এবার আমেরিকার কড়া হুঁশিয়ারির মাঝে ভারতের কঠোর মনোভাব এবং বিদেশনীতি প্রসঙ্গে নরেন্দ্র মোদিকে প্রশংসাসহ শুভেচ্ছা জানালেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী। অবশ্য এর মাঝে পাকিস্তানের বর্তমান সরকারকে খোঁচা দিতেও ভোলেননি তিনি।

উল্লেখ্য, গতকাল সমগ্র দেশবাসীকে কিছুটা স্বস্তি দিয়ে পেট্রোল-ডিজেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। পেট্রোল এবং ডিজেল বাবদ প্রতি লিটার প্রতি 9.50 টাকা এবং 7 টাকা পর্যন্ত ছাড় দেয় সরকার। বর্তমানে দেশে বিরোধী দলগুলি কেন্দ্র সরকারের এই পদক্ষেপকে সমালোচনা করলেও সেই রাস্তায় হাঁটলেন না ইমরান খান। বরং এদিন তিনি প্রশংসায় ভরিয়ে দেন মোদিকে।

ইমরান খান টুইট করেন, “ভারত কোয়াডের সদস্য। তা সত্ত্বেও আমেরিকার কড়া হুঁশিয়ারিকে উপেক্ষা করে অতীতে রাশিয়া থেকে অনেক কম দামে অশোধিত তেল কেনে ভারত আর সেই কারণেই বর্তমানে পেট্রোল-ডিজেলের দাম কমাতে সক্ষম হয়েছে তারা।”

পাশাপাশি পাকিস্তানের বর্তমান সরকারকে খোঁচা মেরে তিনি বলেন, “আমরা সরকারে থাকলেও এটাই করতাম। স্বাধীন বিদেশনীতি তৈরি করা ছিল সরকারের মূল লক্ষ্য। আমাদের কাছে সাধারন দেশবাসীর স্বার্থ সবার আগে ছিল। কিন্তু স্থানীয় মীরজাফর এবং মীর সাদিকরা বিদেশী শক্তির কাছে পরাজয় স্বীকার করে নিল। বর্তমানে তারা পাকিস্তানের অর্থনীতিকে ক্রমশ তলানীতে নিয়ে যাচ্ছে।” এক্ষেত্রে ইমরান খান শাহবাজ শরীফের সরকার এবং তার দলের পুরাতন জোট সঙ্গীদের এদিন ‘মীরজাফর’ এবং ‘মীর সাদিকের’ সঙ্গে তুলনা করেন।

বলে রাখা ভালো, এর পূর্বেও মোদি সরকারের প্রশংসা করে টুইট করেন ইমরান খান। তাঁর এই ভারতপ্রীতির পেছনে পুনরায় পাকিস্তানের গদি দখল করাই প্রধান লক্ষ্য বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তবে বর্তমানে পেট্রোল-ডিজেলের দাম কমানোয় কেন্দ্র সরকারের প্রতি ইমরানের এই প্রশংসামূলক বক্তব্য ভবিষ্যতে দু’দেশের সম্পর্কে কি প্রভাব ফেলে, সে দিকে তাকিয়ে আন্তর্জাতিক মহল।

Related Articles

Back to top button