টাইমলাইনভারত

দিল্লিতে প্রকাশ্য রাস্তায় মণীশকে কুপিয়ে খুন বিলাল, আলম, ফৈজানের! নৃশংসতা বন্দি CCTV-তে

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রকাশ্যেই ঘটে গেল মর্মান্তিক এক ঘটনা। বিকেল গড়িয়ে সবে সন্ধ্যা নেমেছে। পাড়ার দোকানে আড্ডা মারছিলেন অনেকেই। কেউ রাস্তার পাশে চেয়ারে বসে গল্প-গুজব করছিলেন। সেই সময়ই খুব সাধারণ ভাবে হেঁটে এল তিন যুবক। একটু এগিয়ে গিয়ে রাস্তার উপরে দাঁড়িয়ে থাকা অন্য এক যুবককে ঘিরে ধরলেন তাঁরা। শুরু হয় কথা কাটাকাটি। তার পর হঠাৎই তিন যুবকের মধ্যে এক জন ওই যুবককে চেপে ধরতে যান। হাত ছাড়িয়ে কোনওমতে পালাতে যান তিনি। কিন্তু ততক্ষণে ছুরি দিয়ে একের পর এক কোপ বসাতে শুরু করে দেন তিন জন।

বাঁচার জন্য তখন আর্তনাদ করতে শুরু করেন আক্রান্ত যুবক। যেখানে তাঁর উপর হামলা চালানো হচ্ছিল, তার থেকে মাত্র কয়েক হাত দূরে চেয়ারে বসেছিলেন এক জন। অন্য আর এক জনকে দেখা গেল একটি বাইকের উপর বসে মোবাইলে চোখ দিয়েছেন। সামনে এক যুবককে ছুরি দিয়ে একের পর এক কোপ মারা হচ্ছে, আর ওই দু’জন নিশ্চিন্ত হয়ে বসে রয়েছেন। যেন কোনও কিছুই ঘটছে না তাঁদের সামনে!

এরই মাঝে কয়েক জনকে পাশ দিয়ে হেঁটে যেতেও দেখা গেল। কেউ এক বার মুখ ঘুরিয়ে দেখলেন, কিন্তু সবাই কেমন নির্বিকার। অন্তত বার ২০ কোপ মারার পর সকলের সামনে দিয়ে স্বাভাবিক ভাবে হেঁটে হেঁটে চলে গেল হামলাকারীরা। ভয়ানক এই দৃশ্য ধরা পড়েছে সিটিটিভি ক্যামেরায়। পরে ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ভয়ংকর এই ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির সুন্দর নগরী এলাকায়। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় মণীশ নামে এক যুবককে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে আলম, বিলাল, ফৈজান নামে তিন যুবকের বিরুদ্ধে। তিন অভিযুক্তকেই গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিস। প্রাথমিক ভাবে পুলিস অনুমান করছে, পুরনো শত্রুতার জেরে এই ঘটনা। পুলিশ সূত্রে খবর, বছরখানেক আগে মণীশের ফোন কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে কাশিম এবং মহসীন নামে দুই যুবকের বিরুদ্ধে। মণীশ এই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেন। মণীশের পরিবারের অভিযোগ, তার পর থেকেই মামলা তোলার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল। এমনকি মামলা না তুললে মণীশকে খুন করারও হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

Related Articles