টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

w,w,w,w! ব্যাট হাতে রাহুল-সূর্যর তাণ্ডবের পর শামির ১ ওভারে প্রস্তুতি ম্যাচে অজিদের হারালো ভারত

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে নামার পর আজকের আগে অবধি দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছিল ভারতীয় দল। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সেই দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতীয় দলের পারফরম্যান্স খুব একটা আশাব্যঞ্জক ছিল না। প্রথম ম্যাচে কোনক্রমে জয় পেলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৬ রানের ব্যবধানে হারের মুখোমুখি হতে হয়েছিল রোহিত শর্মাদের। কিন্তু সমর্থকদের সেই সব হতাশা কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেল ভারত। সেই সঙ্গে দীর্ঘ অপেক্ষার পর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন ঘটালেন মহম্মদ শামি।

ম্যাচের আগে অস্ট্রেলিয়া টসে জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন। আজ বিরাট কোহলিকে একাদশে রেখেই দল নামিয়েছিলেন রোহিত শর্মা। ম্যাচের শুরু থেকেই কচি বোলারদের ওপর মারাত্মক আক্রমণ শুরু করেন রাহুল। ৪ ওভারে ৪৭ রান তুলেছিল ভারত, যার মধ্যে ৪৩ রানই এসেছিল কর্ণাটকের তারকার ব্যাট থেকে। ২৭ বলে নিজের অর্ধশতরান সম্পূর্ণ করেন তিনি। ৩৩ বলে ৫৭ রান করে তিনি আউট হন।

আজকের ম্যাচে ভালো শুরু করেও বড় রান করতে ব্যর্থ হন রোহিত শর্মা (১৫) এবং বিরাট কোহলি (১৯)। রাহুল আউট হয়ে যাওয়ার পর ভারতীয় দলের ইনিংস কে টানতে থাকেন সূর্যকুমার যাদব। ফর্মে থাকা তারকা আজও অর্ধশতরান পান। ৩৩ বলে ৫০ রান করে কেন রিচার্ডসনের শিকার হন তিনি। এরপর দীনেশ কার্তিকের ১৪ বলে ২০ রানের ইনিংসে ভর করে ২০ ওভারে ১৮৬ রান বোর্ডে তোলে ভারত। অজিদের হয়ে ৪ উইকেট নেন কেন রিচার্ডসন। ১ টি করে উইকেট পান মিচেল স্টার্ক ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

এরপর রান তাড়া করতে নেমে দুর্দান্তভাবে শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার আগেই ৬০ রানের গন্ডি পেরিয়ে যান তারা। দুর্দান্ত ব্যাটিং করতে থাকা মিচেল মার্শকে ৩৫ রানে বোল্ড করেন ভুবনেশ্বর কুমার। উল্টোদিক থেকে উইকেট পড়তে থাকলেও অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে থামানো যাচ্ছিল না। পুরানো ফর্মে থাকা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এইদিন ২৩ রানের একটি কার্যকরী ইনিংস খেলে আউট হন।

শেষ দুই ওভারে ১৬ রান প্রয়োজন ছিল অজিদের। কিন্তু ঠিক এই সময় ম্যাচের প্রথমদিকে খারাপ বোলিং করা হর্ষল প্যাটেল ১৯তম ওভারের প্রথম দুই বলে অ্যারন ফিঞ্চ সহ দুই উইকেট তুলে নিয়ে খেলা ঘুরিয়ে দেন। তবে দ্বিতীয় উইকেটটি হর্ষলের ছিল না, দুরন্ত থ্রোয়ে টিম ডেভিডকে রান আউট করেছিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি. কিন্তু তখনও ম্যাচ ছিল অস্ট্রেলিয়ারই হাতে। শেষ ওভারে জিততে গেলে অজিদের ১১ রান তুলতে হতো যা আজকালকার যুগে বড় কোনো ব্যাপার নয়। প্রস্তুতি ম্যাচ হওয়ার নিয়ম কানুনের খুব বেশি কড়াকড়ি ছিল না। তাই গোটা ম্যাচে বেঞ্চে বসে থাকা শামিকে শেষ ওভারে বল করাতে নিয়ে আসেন রোহিত। প্রথম ২ বলে ৪ রান দেওয়ার পরে ওভারের তৃতীয় বলে লং অনে প্যাট কামিন্সকে দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরান বিরাট কোহলি।

ওভার এর চতুর্থ বলে দুর্দান্ত রান আউট করে অজিদের আরো চাপে ফেলে দেন শামি। বাকি ২ বলে শামি ঠিক সেই কাজটা করলেন যেটা বাকি ভারতীয় পেসাররা গত তিন-চার মাসে করতে পারেননি। নিখুঁত দুটি ইয়র্কারে শেষ দুই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারকে বোল্ড করেন শামি। প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচ ৬ রানে জিতে নেয় ভারত। শামির বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ১-০-৪-৩। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নামার আগে শামির এহেন ফর্ম রোহিতকে বাধ্য করবে তাকে মূল দলে ফেরাতে। গত এক বছরে জাতীয় দলের হয়ে একটিও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ না খেলেও মাত্র এক ওভার সুযোগ পেয়ে দলকে একটি স্মরণীয় জয় এনে দেন শামি।

Related Articles