টাইমলাইনভারত

বৌদ্ধ ধর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হাত মেলালো ভারত-শ্রীলঙ্কা, ১ হাজার কোটি টাকার সাহাজ্যের ঘোষণা নরেন্দ্র মোদীর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বৌদ্ধ ধর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ভারত (India) আর শ্রীলঙ্কা (Sri Lanka) হাত মেলাল। দুই দেশের মধ্যে বৌদ্ধ সম্পর্ক দৃঢ় করতে ভারত শ্রীলঙ্কাকে ১৫ মিলিয়ন ডলারের আর্থিক সাহাজ্য দেওয়ার ঘোষণা করেছে। শনিবার বিদেশ মন্ত্রালয় ভারত-শ্রীলঙ্কা দ্বিপাক্ষিক শিখর সন্মেলনে এই কথা জানায়। ভারত মহাসাগর অঞ্চল বিভাগের সংযুক্ত সচিব এএমটি নারাং বলেন, ‘দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক আর ঐতিহাসিক ঐতিহ্যের কথা মাথায় রেখে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুই দেশের মধ্যে বৌদ্ধ সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যেতে ১৫ মিলিয়ন আমেরিকান ডলারের আর্থিক সহায়তা ঘোষণা করেছেন।”

উনি বলেন, ‘এই অনুদানের ফলে দুই দেশের মানুষের মধ্যে বৌদ্ধ ধর্মের ক্ষেত্রে যোগাযোগ বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করবে।” ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রালয় জানায়, করোনার বিধিনিষেধ সত্ত্বেও, একটি সফল ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ায় নেতাদের প্রতিশ্রুতির দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করে। বিদেশ মন্ত্রালয় জানায়, ভারত আর শ্রীলঙ্কা দ্বিপাক্ষিক আর্থিক সহযোগকে মজবুত করার দিশায় কাজ করছে। ভারত অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার করতে আর করোনা বিষয়ক বিবাদের সাথে মোকাবিলার জন্য শ্রীলঙ্কার সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কে ৪০০ মিলিয়ন ডলারের মুদ্রা বিনিময় সুবিধার বিস্তার করেছে।

বিদেশ মন্ত্রালয়ের তরফ থেকে জারি বয়ানে বলা হয়েছে যে, আলোচনার সময় শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রাজপক্ষে জাফনায় ভারতের সাহায্যে বানানো সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কথা উল্লেখ করেছে। এই কেন্দ্র প্রায় তৈরি হয়ে গিয়েছে আর শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এই কেন্দ্র উদ্বোধনের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। মন্ত্রালয়ের তরফ থেকে বলা হয়েছে যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আশা হল যে, কয়েকটি উৎপাদের আমদানিতে শ্রীলঙ্কা দ্বারা জারি করা অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা খুব শীঘ্রই তুলে নেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শনিবার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মহিন্দা রাজপক্ষের সাথে অনেক বিষয়ে আলোচনা করেন। দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সন্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কার্যক্রমকে সম্বোধিত করে ভারতের প্রতিবেশী দেশ প্রথম হওয়ার নীতিকে প্রাথমিকতা দেন। উনি বলেন, শ্রীলঙ্কার সম্পর্ককে বিশেষ ভাবে প্রাথমিকতা দেওয়া হয়। দুই দেশের মধ্যে হাজার হাজার বছরের পুরনো সম্পর্ক আছে।

Back to top button