fbpx
টাইমলাইনভারত

চীনের ঘাড়ে নিঃশ্বাস! মোবাইল নির্মাণে দুই নম্বরে উঠে এল ভারত

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ২০১৪ সালে ভারতে (india) মোবাইল ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্ট ছিল, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra modi) দ্বিতীয় দফায় মোবাইল নির্মাণে এবার চীনের (china) ঠিক পেছনেই অবস্থান করছে ভারত। মোদি সরকারের মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে ভারতে মোবাইল ফোনের ভ্যালু দাঁড়িয়েছে ৩০ বিলিয়ন ডলার, যা ২০১৪ সালে কেবল ৩ বিলিয়ন ডলার ছিল।

 

ইইতিমধ্যেই, আগামী ছয় মাসের মধ্যে মোবাইল গবেষণা এবং উন্নয়ন, নকশা এবং উত্পাদন চীন থেকে ভারতে নিয়ে আসবে লাভা সংস্থা। শনিবার এই  সংস্থা জানায়  , গত মাসে সরকার ঘোষিত প্রোডাকশন লিংকড ইনসেন্টিভ স্কিম (পিএলআই) -এ চীন থেকে বেশি ব্যয়ের সুবিধা পাওয়ার পরে ভারতীয় মোবাইল ফোন নির্মাতারা এই পদক্ষেপ নিয়েছে। তারা বলেছে “আমরা আমাদের মোবাইল গবেষণা এবং বিকাশ, নকশা এবং উত্পাদন চীন থেকে ভারতে স্থানান্তরিত করার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। ”

লাভা তার মোবাইল ফোনগুলির তেত্রিশ  শতাংশেরও বেশি রফতানি করে মেক্সিকো, আফ্রিকা, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া এবং পশ্চিম এশিয়ার মতো বাজারগুলিতে। লাভা গত সপ্তাহে ২০ শতাংশের বেশি উত্পাদন ক্ষমতা নিয়ে নয়েডায় তার উত্পাদন কেন্দ্রের কাজ শুরু করে।

পাশাপাশি, চীন থেকে নিজেদের ব্যবসা গুটিয়ে ভারতে নিয়ে আসতে চলেছে মার্কিন বহুজাতিক সংস্থা ‘ অ্যাপেল’। জানা যাচ্ছে, আগামী ৫ বছরে ৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের ফোন তৈরি হবে ভারতে। সেই লক্ষ্য সফল হলে ভারত বিশ্বের বৃহত্তম আইফোন রপ্তানি কারক দেশ হবে।

আগামী ১ বছরের মধ্যে তাঁদের কোম্পানীর অর্ধেক, অর্থাৎ চীন থেকে অ্যাপেলের প্রোডাকশন ক্ষমতার ২০ শতাংশ ভারতে নিয়ে আসতে চাইছে। পাশাপাশি এই কোম্পানী ভারতে কন্ট্রাক্ট ম্যানুফ্যাকচারের মোতাবেক নিজেদের ম্যানুফ্যাকচারিং রেভিনিউ আগামী ৫ বছরের মধ্যে ৪০ আরব ডলার করতে চায়।

Back to top button
Close
Close