টাইমলাইনভারতআন্তর্জাতিক

সীমান্তে উত্তেজনার জন্য মূল দায়ী ভারত, আমেরিকার উস্কানিও রয়েছে: দাবি চীনের বিদেশমন্ত্রকের

Bangla Hunt Desk: লাদাখের সীমান্ত সংঘর্ষের মধ্যেও চীন (China) বাকবিতণ্ডা চালিয়ে যাচ্ছে। এই ইস্যুতে ভারতে (india) দোষী সাবস্ত করে বেজিং-র দাবি, সীমান্তে পরিস্থিতি নষ্টের পেছনে ভারত দায়ী। এখানেই থেমে থাকেনি চীন। বুধবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রক এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে, ভারত সীমান্ত চুক্তি লঙ্ঘন করে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে চীনের দিকে এগোচ্ছে। ভারতের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ সম্পূর্ণ রূপে অস্বীকার করেছে ভারত সরকার।

তিব্বতিবাসীরা ভারতীয় সৈন্যদের সহায়তা করছে
সীমান্ত এলাকায় চীনের বিরোধিতা করতে তিব্বতিবাসীরা ভারতীয় সৈন্যদের সহায়তা করছে। এই অভিযোগের বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র শুনিংকে প্রশ্ন করা হলে তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন, ‘এই প্রশ্নের উত্তর ভারতকেই জিজ্ঞাসা করুন’।

তিনি আরও দাবি করেন, ‘আমাদের কাছে প্রমাণ আছে তিব্বতিবাসী এবং মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর মধ্যে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক রয়েছে’। সেইসঙ্গে তিনি আরও জানান, ভারতের পাশাপাশি চীন এইসকল দেশেরও বিরোধিতা করে, যারা তিব্বতীয়দের সঙ্গে সম্পর্ক রেখেছে এবং তাদের আশ্রয়ও দিয়েছে।

ভারত উত্তেজনার পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছিল
গত শনিবার ফের আবারও সীমান্তে ভারত চীনের মধ্যে যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। তাঁর জন্য চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের একজন মুখপাত্র ভারতকেই দোষারোপ করেছে। তাঁদের দাবি, ভারত সীমান্ত চুক্তি উলঙ্ঘন করে উত্তেজনা সৃষ্টি করেছিল। সেইমত তারা জানিয়েছে, সীমান্ত এলাকায় উত্তেজনা ছড়াতে নয়া দিল্লী সর্বদাই মদত দিচ্ছে। তাই চীন পররাষ্ট্র মন্ত্রকের দাবি, তারা ভারতের সঙ্গে রাজনৈতিক ও সামরিক পর্যায়ে আলোচনার মাধ্যমে আক্রমণাত্মক পদক্ষেপ এড়িয়ে চলতে বলেছে।

Related Articles

Back to top button