টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

বৃথা গেল মিলারের ১০৭*, বোলিং নিয়ে চিন্তা থাকলেও আরও একটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জিতলো ভারত

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: আজ গুয়াহাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে নেমেছিল রোহিত শর্মার ভারত। ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর রানের পাহাড় গড়েও মাত্র ১৬ রানের ব্যবধানে জয় পেল ভারত। সেইসঙ্গে সাম্প্রতিক কালের প্রথম অধিনায়ক হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতলো রোহিত।

এই ম্যাচে লোকেশ রাহুল একজন ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দ্রুততম অর্ধশতরান করার রেকর্ড গড়েছিলেন মাত্র ২৪ বলে। তিনি ৫৭ রান করে আউট হওয়ার পরই ব্যাট করতে নেমে সেই রেকর্ডটি ভেঙে দেন সূর্যকুমার যাদব। ১৮ বলে  অর্ধশতরান করেন তিনি। ভারতীয় দল ১৮ ওভারের আগেই ২০০ রানের গন্ডি অতিক্রম করে গিয়েছিল।

মারমূখী মেজাজে ব্যাটিং করেছেন বিরাট কোহলিও। অল্পের জন্য অর্ধশতরান পাননি তিনি। তবে ২৮ বলে ৪৯ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন তিনি। সূর্যকুমার ২২ বলে ৬১ রান করে আউট হওয়ার পর দীনেশ কার্তিক নেমে ৭ বলে ১৭ রান করে ভারতকে ২৩৭ রানের স্কোরে নিয়ে যান।

এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শুরুতে রান আটকে রাখছিলেন দীপক চাহার। উল্টোদিকে দ্রুত দুই উইকেট তুলে প্রোটিয়াদের ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছিলেন অর্শদীপ। একটা সময় মনে হচ্ছিল যে ভারত বিশাল বড় ব্যবধানে জয় পাবে কারণ প্রোটিয়া ওপেনার কুইন্টন ডি কক অত্যন্ত ধীর গতিতে ব্যাটিং করছিলেন। তবে শেষদিকে হিসাব কিছুটা হলেও বদলায়।

এইডেন মার্করম (৩৩) কিছুটা পাল্টা আক্রমণ করা শুরু করেছিলেন তবে তিনি আউট হওয়ার পর ডেভিড মিলার ব্যাপারটিকে আলাদা মাত্রায় নিয়ে যান। ৪৫ বলে শতরান করে একটি মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষপর্যন্ত অসম্ভবকে সম্ভব করা যায়নি। ২২১ রান তুলতে পারে প্রোটিয়া শিবির। মিলার ১০৬ এবং ডি কক ৬৯ রানে অপরাজিত থাকেন। ভারতের ডেথ বোলিং নিয়ে চিন্তাটা থেকেই গেল এখনও।

Related Articles