টাইমলাইনভারত

পরিবেশ দূষণ রোধে ভারতীয় রেলের কড়া পদক্ষেপ; ট্রেনের ভিতরে-বাইরে প্লাস্টিকের বোতল, ব্যাগ দেখলেই হতে পারে জরিমানা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: প্লাস্টিক দূষণ রোধে প্রথম বড় পদক্ষেপ করতে চলেছে ভারতীয় রেল। আগামী ২ অক্টোবরের মধ্যে প্লাস্টিকের ব্যবহার পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে হবে, কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে রেল মন্ত্রকের তরফে। স্টেশন চত্ত্বরে ভেন্ডররা প্লাস্টিক ব্যবহার করতে পারবেন না। রেলের সমস্ত কর্মীকেও প্লস্টিকজাত সমস্ত পণ্যের ব্যভহার কমিয়ে আনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।প্যাটফর্ম, প্যান্ট্রি কার, ট্রেনের ভিতরে-বাইরে কোথাও প্লাস্টিক ব্যবহার করতে পারবেন না রেলের কর্মী থেকে যাত্রীরা। ‘ইন্ডিয়ান রেলওয়ে ক্যাটারিং অ্যান্ড ট্যুরিসম কর্পোরেশন’ (আইআরসিটিসি)-কে এমনই নির্দেশ দিয়েছে রেল মন্ত্রক।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ থেকে অনুপ্রাণিত হয়েই ভারতীয় রেল এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। আগামী ২ অক্টোবর, গান্ধীজয়ন্তীর দিন থেকেই স্টেশন চত্ত্বর এবং ট্রেনের ভেতরে-বাইরে ৫০ মাইক্রনের কম পুরু সমস্ত প্লাস্টিকের ব্যাবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে রেল মন্ত্রক।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার সকাল থেকেই, প্ল্যাটফর্মে ঘুরে ঘরে অনেককেই খালি প্লাস্টিকের বোতন, ক্যারি ব্যাগ কুড়োতে দেখা যায়। আইআরসিটিসির এক কর্মীর কথায়, ‘‘৫০ মাইক্রনের কম মোটা প্লাস্টিকের ব্যবহার যাতে বন্ধ হয়, সে ব্যাপারে আমরা নজর রাখছি। তবে বিকল্পের ব্যবস্থা না করে প্লাস্টিক বন্ধ করা মুশকিল। তাই বিকল্প নিয়েও চিন্তাভাবনা চলছে। ’’

ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার (ডিআরএম) ও রেলের শীর্ষ আধিকারিকদের ব্যক্তিগত ভাবে মেসেজ পাঠিয়েও প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধের নির্দেশ দেন রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদব। তিনি বলেছেন, ‘‘স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে প্লাস্টির বন্ধের কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্লাস্টিক দূষণ রোধে নানা কর্মসূচী চলছে গোটা দেশেই। রেলের তরফে বড় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জিএমন, ডিআরএম এবং রেলের অন্যান্য শীর্ষ আধিকারিক থেকে গ্রুপ ফোর স্টাফ, সকলকেই স্টেশনগুলিতেই কড়া নজরদারি রাখতে বলা হয়েছে।’’

Leave a Reply

Close
Close