টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

পরপর দুই ম্যাচে দুরন্ত জয় ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের, পদকের থেকে একধাপ দূরে রয়েছেন রেণুকারা

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: অস্ট্রেলিয়া মহিলা দলের কাছে হারের পর বাকি দুই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল। কমনওয়েলথ গেমসে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অজিদের কাছে প্রায় জিতে যাওয়া ম্যাচে হারের মুখ দেখতে হয়েছিল। কিন্তু তারপর ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান এবং কাল রাতে বার্বাডোজকে দাপট দেখিয়ে হারিয়েছেন হরমনপ্রীতরা। কাল রাতে শেফালী, জেমিমাদের অসাধারণ ব্যাটিং এবং স্নেহ রানা, রাধা যাদবদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে সহজ জয় পায় ভারত।

এখন যেন ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা পদকের গন্ধ পেতে শুরু করে দিয়েছেন। সর্বোচ্চ পদকের জন্য সেমিফাইনালটি জিততে হবে ভারতকে। কিন্তু ভারতীয় মহিলা দলকে ঘিরে প্রত্যাশা তুলনামূলকভাবে কিছুটা কম। কারণ ক্রিকেট বোদ্ধাদের অনেকে মনে করলেন ভারতীয় দল সেমিতে হেরে যদি তারপর ব্রোঞ্জ পদকও নিশ্চিত করতে পারে তাহলেই তা বিশাল বড় ব্যাপার।

অবশ্য যারা এই আশা করছেন, তাদের পুরোপুরি দোষ দেওয়া যায়না। অতীতে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে চোক করার স্বভাব বার বার দেখা গিয়েছে ভারতীয় দলের মধ্যে। গোটা প্রতিযোগিতায় ভালো খেলে গুরুত্বপূর্ণ নক-আউটে গিয়ে সামগ্রিক ভরাডুবির চিত্রটা স্মৃতি, হরমনপ্রীতদের কাছে নতুন কিছু নয়। তাই কেউই খুব বেশি আশাবাদী নন।

কালকের ম্যাচে বার্বাডোস টসে জিতে ভারতকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান। স্মৃতি মান্ধানা দ্রুত ফিরে গেলেও অপর তরুণ ওপেনার শেফালী ভার্মা এবং জেমিমা রদ্রীগেস ভারতের ইনিংসকে টানতে থাকেন। শেফালী ৪৩ রান করে দুর্ভাগ্যবশত রান আউট হন। এরপর অধিনায়ক হরমনপ্রীত গোল্ডেন ডাকে ফিরে যান। কিন্তু দীপ্তি শর্মার (৩৪*) সাথে মিলে ভারতকে ১৬২ অবধি পৌঁছে দেন জেমিমা। তিনি নিজে ৪৬ ফলে ৫৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। জবাবে বার্বাডোজ ব্যাট করতে নামার পর রেনুকা ঠাকুর সহ বাকি ভারতীয় বোলারদের দাপটে কুড়ি ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৬২ রানের বেশি তুলতে পারেনি তারা। ৪ উইকেট নেন রেনুকা। ১০০ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় ভারত।

Related Articles