টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারত

কার্নিশে দেড় ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে থেকে অবশেষে মরণ ঝাঁপ! শুধু চেয়েই রইল প্রশাসন

বাংলাহান্ট ডেস্ক : মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে গেল কলকাতার মল্লিকবাজারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। আট তলার কার্নিশ থেকে সোজা নিচে পড়ে গেলেন এক রোগী। মল্লিকবাজারের ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্সের কার্নিশে দাঁড়িয়ে রোগী! দৃশ্য দেখতে নীচে ব্যস্ত রাস্তায় ভিড় জমে যায়। জানা যাচ্ছে নার্ভের সমস্যা ছিল তাঁর।সকাল থেকেই তাঁকে কার্নিশ থেকে নামানোর চেষ্টা চলছিল। দমকল কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেও যান। কিন্তু হঠাৎই কার্নিশ থেকে ঝাঁপ দেন তিনি। তাঁকে উদ্ধারের সমস্ত প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়।

আইএনকে-র উঠোনে পড়ে যান ওই রোগী। তাঁকে সেখান থেকেই রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক। এদিন সকাল থেকেই ওই রোগীকে নিয়ে টানাপোড়েন চলে হাসপাতাল চত্বরে। বিশেষ সূত্রে জানা যাচ্ছে রোগীর নাম সুজিত অধিকারী। লেকটাউন এলাকায় বাড়ি তাঁর। গত বৃহস্পতিবার তিনি ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্সে নার্ভের সমস্যা নিয়ে ভর্তি হন। শনিবার সকালে হঠাৎই ৮ তলার জানলা দিয়ে বাইরে বেরিয়ে পড়েন তিনি। জানলার ধার বেয়ে পৌঁছে যান সোজা কার্নিশে।

তাঁকে উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান দমকল কর্মীরা। কিন্তু কোনও ভাবেই তাঁকে সেখান থেকে নামানো সম্ভব হচ্ছিলো না। হাইড্রোলিক ল্যাডার দিয়ে তাঁকে নামানোর চেষ্টা করছিলেন দমকল কর্মীরা। নিয়ে আসা হয় রোগীর পরিবারকেও। তাঁকে সেখানে তুলে ওই রোগীকে নামানোরও পরিকল্পনা করা হয়। কিন্তু কার্নিশ থেকেই চিৎকার করে তিনি জানান, ‘ওকে ওপরে তোলা হলে আমি এখনই ঝাঁপ দেব।’

টালবাহানা চলছিলই। হঠাৎ দেখা যায় কার্নিশ থেকে ঝাঁপ দিচ্ছেন ওই রোগী। আটতলা থেকে পড়ে সাত তলার কার্নিশে আটকে যান। কিছুক্ষণ দু’হাতে ভর করে ঝুলেছিলেন তিনি। হয়ত শেষ মুহুর্তে বাঁচার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু তখন অনেকটা দেরি হয়ে গেছে। এর পরেই হাত ছিটকে নিচে পড়ে যান। রক্তাক্ত অবস্থায় ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়নেসের উঠোন থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। সাথে সাথেই তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসার জন্য।

Related Articles

Back to top button