টাইমলাইনবিশেষভারত

প্রসবের ৮ ঘণ্টা আগে অফিসে বসে কাজ করেছেন জয়পুরের মেয়র, ধন্য ধন্য করছে গোটা ভারত

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ পৃথিবীর প্রতিটি মহিলার কাছে মা হওয়া সবথেকে সুখের ও আনন্দের। রাজস্থানের জয়পুর গ্রেটার পুরসভার মেয়র ডঃ সৌম্যা গুর্জর এই নিয়ে দ্বিতীয়বার মা হলেন। তিনি নিজেই এই কথা নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে দেন। আনন্দের এই অবসরে ডঃ সৌম্যা কাজের প্রতি নিষ্ঠারও প্রদর্শন করেন। ওনার কাজের প্রতি সমর্পণের কাহিনী শুনে প্রশংসা হচ্ছে গোটা দেশ জুড়ে।

কাজের প্রতি ওনার আগ্রহ এতটাই যে, মা হওয়ার আট ঘণ্টা আগে তিনি জয়পুর গ্রেটার পুরসভার দফতরে আধিকারিকদের সঙ্গে সাফাই ব্যবস্থা নিয়ে বৈঠক করেছিলেন। তিনি অন্য সাধারণ দিনের মতো সেদিনও কাজে ব্যস্ত ছিলেন। সৌম্যা কাউকে জানতেই দেন নি যে তিনি প্রসব যন্ত্রণায় ভুগছেন। প্রসঙ্গত, সৌম্যা গুর্জর ৯ঃ২১ মিনিটে পুরসভায় কাজ করার মাঝে নিজের ছবি শেয়ার করেছিলেন, আর সকাল ৫ঃ১৪ নাগাদ তিনি একটি ফুটফুটে পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। এই কথা যখন তিনি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেন, তখন সবাই অবাক হয়ে যায়।

সৌম্যা ট্যুইট লেখেন, ‘কর্মই পূজা। অনেক রাত পর্যন্ত পুরসভা অফিসে মিটিং করি। প্রসব যন্ত্রণা শুরু হওয়ার পর রাত ১২ঃ৩০ এ কুকুন হাসপাতালে ভর্তি হই আর সকাল ৫ঃ১৪ মিনিটে ভগবানের কৃপায় এক পুত্র সন্তানের মা হই। দুজনেই সুস্থ আছি এখন।”

ডঃ সৌম্যা ঠিক করেছেন যে, ডেলিভারির তিনদিন পর থেকে তিনি আবারও পুরসভার কাজ দেখা শুরু করে দেবেন। মেয়র সৌম্য গুর্জর বলেন, তিনি সোমবার থেকে বাড়িতে বসে পুরসভার কাজ দেখা শুরু করে দেবেন, আর ১০ দিন পর ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে অফিসে গিয়ে কাজ সামলাবেন।

জানিয়ে দিই, সৌম্যা গুর্জর একটি কন্যা সন্তানের মা। এবার তিনি একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। উনি ডেলিভারির দিনে যেভাবে সকাল থেকে সন্ধ্যে কাজের জন্য দৌড়েছেন, সেটা দেখে কেউ বলতে পারেনি যে তিনি কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আবারও মা হতে চলেছেন।

 

Back to top button