টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচনরাজনীতি

‘বুঝেছিলাম ও মালের কিছুই হবে না, মীরজাফরটা সব ভুলে গেছে’, শুভেন্দুকে আক্রমণ কল্যাণের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ দল বদল করতেই শুভেন্দু অধিকারীর (Subhendu Adhikari) নামে পুষে রাখা ক্ষোভ উগরে দিলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (kalyan banerjee)। তৃণমূল ছাড়ার আগে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে সৌগত রায়, অভিষেক ব্যানার্জি এবং প্রশান্ত কিশোরের বৈঠকে পর শুভেন্দুকে নিজের ভাই এবং শিশির অধিকারীকে নিজের পিতার সম্মান দিয়েছিলেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সেই ‘ভাই’ শুভেন্দু দল বদল করতেই তাঁর উপর একরাশ ক্ষোভ উগরে দিলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

আসন্ন নির্বাচনকে টার্গেট করে চলছে আক্রমণের লড়াই। শাসক দলকে বাংলার মসনদ থেকে টালাতে বদ্ধ পরিকর হয়ে উঠেছে গেরুয়া শিবির। চলছে মিছিল, জনসভা, সমাবেশ। মঞ্চে দাঁড়িয়েই একপক্ষ সরাসরি আক্রমণ করছেন বিরোধী পক্ষকে। সেইসঙ্গে অব্যাহত রয়েছে দল ভাঙ্গনের খেলাও। সেইমতই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যেতেই শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার বিকেলে ব্যারাকপুরের সভা থেকে আক্রমণাত্মক বাণ ছুঁড়লেন শুভেন্দু অধিকারীর দিকে। তাঁর কথায়, ‘যার নয়ে হয় না, তাঁর নব্বইতেও হয় না। যখন সৌগতদা ওঁরা চেষ্টা করছিলেন, তখনই বুঝেছিলাম এই মালের আর কিছু হওয়ার নেই। মমতা ব্যানার্জি ছিলেন বলেই নির্বাচনে জয়লাভ করতে পেরেছিল। ২০০৬ সালে বিধানসভা কেন্দ্র বদলেই যে জয় এসেছিল, সেকথা বেমালুম ভুলে গেছে মীরজাফর’।

এখানেই থামলেন না তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপিকে একহাত নিয়ে হুঙ্কার দিয়ে বলেন, বিজেপিতে এখন সব নতুন কুঁড়ি (শুভেন্দু অধিকারী) ফুটছে। রাম নবমীকে দাঙ্গা পাকাতে এলে তৃণমূল বুঝে নেবে। হিন্দু ধর্মকে নিজেদের বাবার সম্পত্তি বলে মনে করে বিজেপি’।

Back to top button