টাইমলাইনবিনোদনভারত

প্রকাশ‍্যে গুলি করে মারা হোক ধর্ষকদের, হাথরাসের গণধর্ষণ কাণ্ডে ক্ষোভে ফুঁসছেন কঙ্গনা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের (uttar pradesh) হাথরাসের (hathras) গণধর্ষিতা তরুণীর মৃত‍্যু নিয়ে ফুঁসে উঠলেন কঙ্গনা রানাওয়াত (kangana ranawat)। ধর্ষকদের প্রকাশ‍্যে গুলি করে মারা উচিত, এমনটাই মনে করেন তিনি। টুইটারে নিজের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিনেত্রী।

টুইটে কঙ্গনা লেখেন, ‘ধর্ষকদের প্রকাশ‍্যে গুলি করে মারা হোক। প্রত‍্যেক বছর যে হারে গণধর্ষণের সংখ‍্যা বেড়ে চলেছে তার সমাধান কি? এই দেশের জন‍্য কি দুঃখ ও লজ্জাজনক দিন। আমাদের লজ্জা হওয়া উচিত, মেয়েদের রক্ষা করতে না পারার জন‍্য।’

টুইটে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অক্ষয় কুমারও। তিনি লিখেছেন, ‘ক্রুদ্ধ ও বিরক্ত! হাথরাস গণধর্ষণে কি নির্মমতা। এসব কবে বন্ধ হবে? আমাদের আইন এত কঠোর হওয়া উচিত যে শাস্তির নামেই যেন ধর্ষক কাঁপে। ধর্ষকদের ফাঁসিতে ঝোলানো হোক। মহিলাদের সুরক্ষার জন‍্য সরব হোন। এটুকুই করতে পারি আমরা।’

গত ১৪ সেপ্টেম্বর উত্তর প্রদেশের হাথরাসে কয়েকজন উচ্চবর্ণের লালসার শিকার হয় এক দলিত তরুণী। মাঠ থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে অকথ‍্য অত‍্যাচার চালানো হয় ওই ১৯ বছরের তরুণীর উপর। এমনকি তারপর তাকে শ্বাসরোধ করে হত‍্যার চেষ্টাও করা হয়। জানা গিয়েছে, তরুণীর জিভও কেটে নেয় বর্বর অভিযুক্তরা। ভেঙে যায় গলার পেছনে ঘাড়ের হাড়।

এরপরেও ধর্ষকদের নাম নিজের বয়ানে উল্লেখ করেন ধর্ষিতা তরুণী। গত সোমবার আলিগড়ের জওহরলাল নেহরু মেডিক‍্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে দিল্লির সফদর জং হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় ওই তরুণীকে। সেখানেই আজ মৃত‍্যু হয় তার।

এই ঘটনায় গোটা দেশ রাগে ফুঁসছে। গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। তাদের বিরুদ্ধে ৩০৭ ও ৩৭৬ডি ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।

Back to top button