টাইমলাইনবিনোদনভিডিও

প্রথম হিরোকে ডেট না করার উপদেশ সারাকে, করিনার পুরনো ভিডিও নিয়ে গর্জে উঠলেন কঙ্গনা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: ‘নিজের প্রথম হিরোকে কখনো ডেট করবে না’, সৎ মেয়ে সারা আলি খানের (sara ali khan) জন‍্য এই উপদেশই দিয়েছিলেন করিনা কাপুর খান (kareena kapoor khan)। তাঁর ইঙ্গিত যে সুশান্ত সিং রাজপুতের (sushant singh rajput) দিকেই ছিল তা বুঝতে কারোরই বাকি নেই। সুশান্তের বিপরীতেই কেদারনাথ ছবি দিয়ে বলিউডে ডেবিউ করেন সারা।

এবার সেই পুরনো ভিডিওর (video) প্রসঙ্গ তুলেই করিনা তথা গোটা বলিউডের উদ্দেশে তোপ দাগলেন কঙ্গনা রানাওয়াত (kangana ranawat)। এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ‍্যমের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে ফের একবার সারা ও সুশান্তের সম্পর্ক নিয়ে সরব হন অভিনেত্রী। তিনি অভিযোগ করেন, বলিউড কোনোদিনই সুশান্তকে নিজেদের পরিবারের সদস‍্য বলে মনে করেনি। বরং তাঁকে বহিরাগত ভাবেই দেখেছিল।


কঙ্গনার কথায়, করিনা ক‍্যামেরার সামনে সারাকে ওই উপদেশ দিয়েছিল। অর্থাৎ সুশান্তের চরিত্র হনন করে তাঁকে বিদ্রূপ করেছিলেন তিনি। সবাই মিলে তাঁকে এক কোনায় ঠেলে দিয়েছিল। এরপর একদল শকুন এসে ওর সঙ্গে যা করার করেছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর একটি টক শোতে এসেছিলেন করিনা কাপুর খান ও অমৃতা অরোরা। সেখানে বেবোকে জিজ্ঞাসা করা হয়, সারাকে ডেটিং নিয়ে একটি উপদেশ দিতে হলে তিনি কি দেবেন। উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, “নিজের প্রথম হিরোকে কখনো ডেট করবে না।”

 

এর আগেই সারা ও সুশান্তের প্রেমের কথা ফাঁস করে দিয়েছিলেন সুশান্তের বন্ধু স‍্যামুয়েল হাওকিপ। নিজের ইনস্টাগ্রাম হ‍্যান্ডেলে তিনি লেখেন, ‘কেদারনাথের প্রোমোশনের কথা মনে আছে আমার। সুশান্ত ও সারা একে অপরের প্রেমে মজে ছিল। ওদের আলাদা করা যেত না। এত পবিত্র ও শিশুর মতো সরল ভালবাসা ছিল। একে অপরের প্রতি এত শ্রদ্ধা ছিল ওদের যা এখনকার সম্পর্কে দেখাই যায় না।’

তিনি আরও লেখেন, ‘সুশান্তের পাশাপাশি তাঁর পরিবার, বন্ধু এমনকি কর্মচারীদের জন‍্য শ্রদ্ধা ছিল সারার। আমার মনে হয় সোনচিড়িয়ার বক্স অফিস কালেকশন দেখার পরই সুশান্তের সঙ্গে সারার বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তের পেছনে নিশ্চয়ই কোনও বলিউড মাফিয়ার হাত রয়েছে।’

এই প্রসঙ্গে মন্তব‍্য করেন কঙ্গনা রানাওয়াতও। টুইটারে তাঁর টিমের হ‍্যান্ডেলে লেখা হয়, ‘আউটডোর শুটিংয়ের সময় একই ঘরেও থাকছিলেন সুশান্ত ও সারা। এই ফ‍্যান্সি নেপোটিজম কিডসরা কেন বহিরাগতদের স্বপ্ন দেখায় আর তারপর প্রকাশ‍্যে ছুঁড়ে ফেলে দেয়? এরপর সুশান্ত যে একটা শকুনের পাল্লায় পড়ে তাতে আশ্চর্যের কিছু নেই।’

Back to top button