টাইমলাইনভারতখেলাক্রিকেট

ধোনিকে মেন্টর করা নিয়ে খুশি কপিল, যদিও প্রশ্ন তুললেন নির্বাচন নিয়ে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ইতিমধ্যে ভারতীয় দল ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। তবে দল ঘোষণার থেকেও বড় চমক হয়ে দাঁড়িয়েছে অবসরের এক বছর কাটতে না কাটতেই ফের একবার মহেন্দ্র সিং ধোনির ভারতীয় দলে কাম ব্যাক। যদিও এবার খেলোয়াড় হিসেবে কাম ব্যাক করেননি তিনি। এখন বিরাটদের পরামর্শদাতা হিসেবে কাজ করবেন ধোনি। বিসিসিআইয়ের এই সিদ্ধান্তে খুশি সমর্থক থেকে বিশেষজ্ঞ সকলেই।

প্রত্যেকেরই আশা, ধোনি দলে থাকার কারণে আরও অনেক বেশি শক্তিশালী হবে বিরাট ব্রিগেড। ইতিমধ্যেই বিসিসিআইয়ের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সুনীল গাভাস্কার, গৌতম গম্ভীর সহ অনেক প্রাক্তন ক্রিকেটারাই। প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণার দিনেই এই মাস্টার স্ট্রোক দেয় জয়-সৌরভ জুটি। রবি শাস্ত্রী, বিরাট কোহলি এবং মহেন্দ্র সিংহ ধোনির সঙ্গেও নিজেই কথা বলেছেন সচিব জয় শাহ। একদিকে যেমন দলের পাশে দাঁড়াতে পেরে খুশি ধোনি, তেমনি গুরুকে খুশি ফিরে পেয়ে খুশি শিষ্য বিরাটও। রবি শাস্ত্রী তো নিজেই ধোনি ভক্ত হিসেবেই পরিচিত। তাই কার্যত কোথাও কোনও বাধা পেতে হয়নি জয় শাহকে। এবার এ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন প্রাক্তন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব। কলকাতার এক অনুষ্ঠানে ধোনি সম্পর্কে নিজের মনের কথা খুলে বলেন তিনি।

কপিল বলেন, “এটি একটি ভালো সিদ্ধান্ত। এতে উপকৃত হবে টিম ইন্ডিয়া। ড্রেসিংরুমে তার উপস্থিতি খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস বাড়াবে।” তবে সাথে সাথেই তার সংযোজন, “আমি সবসময় বিশ্বাস করি যে অবসর নেওয়া তিন চার বছর পরেই যেকোনো খেলোয়াড়কে কোনো না কোনোভাবে দলের সঙ্গে যুক্ত হওয়া উচিত। হয়তো ধোনির ব্যাপারটা স্পেশাল। কারণ তার অবসর নেওয়ার পর মাত্র এক বছর কেটেছে। বর্তমানে টিম ইন্ডিয়ার প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রীও ভালো নেই। এমন পরিস্থিতিতে, ধোনিকে দলে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত স্পেশাল কেসের আওতায় পড়ে। আমি মনে করি এটা বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই করা হয়েছে।”

২০১৯ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও ট্রফি ঘরে আনতে ব্যর্থ হয়েছিল ধোনি-কোহলি জুটি। তারপরেই কার্যত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সন্ন্যাস নেন মাহি। এবার এই জুটির কাছে ফের একবার সুযোগ রয়েছে ভারতকে চতুর্থ আইসিসি বিশ্বকাপ ট্রফি এনে দেওয়ার। একইসঙ্গে ২০০৭ সালের পর থেকে যে ১৪ বছরের অজ্ঞাতবাস চলছে ভারতের, শেষ করে এবার ফের একবার বিশ্বজয়ী মসনদে বসারও সুযোগ রয়েছে দলের সামনে।

 

Related Articles