টাইমলাইনভারত

প্রাতঃভ্রমণে যাবেন বড় বাবু, পুলিশের নির্দেশে রোজ ঘণ্টা খানেক বন্ধ থাকে বড় রাস্তা! যায়না স্কুল বাসও

বাংলাহান্ট ডেস্ক : শরীর সুস্থ-সবল রাখতে হলে ছোটো থেকে বড়ো সবার নিয়মিত এক্সারসাইজ করা প্রয়োজন। প্রতিদিনের রুটিনমাফিক ব্যস্ততা তো থাকবেই কিন্তু ক্লান্ত হয়ে পড়লে চলেনা। শরীরের সবকটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সচল রাখতে এবং প্রতিদিনের কাজ করার শক্তি মজুত করতে মর্নিং ওয়াক একটি অব্যর্থ উপায় হতে পারে, জানেন কী? তাই দিন শুরু করুন মর্নিং ওয়াক দিয়ে।

হোক না আপনার বাড়ির কাছের কোন পার্কে, কিংবা রাস্তার ধার বরাবর, অথবা পাড়ার মোরের ক্যাফে অবধি, আধঘণ্টাও যদি হাঁটেন তা আপনার জন্য অত্যন্ত উপকারি, তাই শরীর স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে রোজ সকালে হাঁটেন বড় বাবু! রাস্তায় তাই বড় গাড়ির প্রবেশ নিষেধ। এমনি অভিযোগ উঠল কেরলের এক পুলিশ কর্তার বিরুদ্ধে।

জানা যায় রোড ব্লকার বসিয়ে প্রতিদিন সকালের বেশ কয়েকটি ঘণ্টা একটি মূল রাস্তার গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা হতো। রোজ সকালে স্কুল বাস এবং সকালের অফিস যাত্রীদের গাড়ি, এমনকি অটোরিক্সার মতো ছোট গাড়ি চলাচল করে কোচির কুইনস ওয়াকওয়ে সংলগ্ন মাঝারি রাস্তাটি দিয়ে। শুধু মাত্র রবিবার সকাল ৬টা-৭টা পর্যন্ত গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকে ছোটদের স্কেটিং বা সাইকেল চালানোর জন্য। কিন্তু ট্রাফিক পুলিশ কর্তা বাকি দিন গুলিতেও সেই একই নিয়ম জারি করেছেন কোচির ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার বিনোদ পিল্লাই। রাস্তা বন্ধের অভিযোগ যাঁর নামে তিনি নিজেই ট্রাফিক পুলিশের বড় কর্তা।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, গত তিনদিন ধরে তাঁর প্রাতঃভ্রমণের সময়ে টানা ঘণ্টা খানেক গাড়ি বন্ধ থাকায় রোজ সকালে স্কুল বাস এবং অন্যান্য গাড়ির চলাচলে সমস্যা হচ্ছে তাঁদের। এর ফলে খুব সমস্যার পরতে হয় তাদেরকে, ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই কেরলার ওই ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিস জারি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত মাসেই দিল্লিতে এক আইএএস কর্তার বিরুদ্ধে নিজের পোষ্য কুকুরকে হাঁটানোর জন্য গোটা স্টেডিয়াম খালি করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। দিল্লির ত্যাগরাজ স্টেডিয়ামের ওই ঘটনার পর প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি (রাজস্ব) সঞ্জীব খিরওয়ার এবং তাঁর স্ত্রী রিঙ্কু দুগ্গাকে দিল্লি থেকে যথাক্রমে লাদাখ এবং অরুণাচল প্রদেশে বদলি করিয়ে দেওয়া হয় এবং পুলিশ কর্তার বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button