টাইমলাইনভারত

বড় খবরঃ ৫০ হাজার হাঁসকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল কেরল সরকার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে এখনও ভুগছে গোটা বিশ্ববাসী। এরই মধ্যে দেখা দিল বার্ড ফ্লু (bird flu)। কেরলে নতুন করে পশুপাখির মধ্যে এই রোগের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে একাধিক এলাকায়। প্রশাসনের পক্ষ থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে কন্ট্রোলরুমও।

নতুন করে হাঁসের শরীরে এই রোগ ছড়িয়ে পড়ায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে আলাপুঝা ও কোট্টায়ম জেলায়। আলাপুঝা ও কোট্টায়ম মিলিয়ে প্রায় ১২,০০০ টি হাঁস মারা গিয়েছে। তার মধ্যে কোট্টায়ম জেলার ছোট্ট শহর নিন্দুরের একটি হাঁসের খামারে প্রায় ১৫০০ টি হাঁস মারা গিয়েছে। আর আলাপুঝার কুট্টান্ড প্রদেশের একাধিক খামারের হাঁস মারা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, কেরলে গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে আলাপুঝা ও কোট্টায়ম জেলায় বহু মৃত হাঁসের দেহ উদ্ধার করা হয়। তার মধ্যে থেকে আটটি হাঁসের নমুনা নিয়ে ভোপালে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। কিন্তু তার মধ্যে ইনফ্লুয়েঞ্জা এ ভাইরাস এইচফাইভএনএইট পাওয়া গিয়েছে পাঁচটি হাঁসের শরীরেই। এর জেরেই আরও বেশি করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

শুধুমাত্র হাঁস বা মুরগি নয়, এই রোগের লক্ষণ দেখা গিয়েছে কাকের মধ্যেও। রাজস্থানে ২৫২ টি কাক, ঝালওয়ার জেলাতেই ১০০ টি, বারণে ৭২ টি, কোটায় ৪৭ টি, পালিতে ১৯ টি, যোধপুরে ৭টি, জয়পুরে ৭টি এবং মধ্যপ্রদেশেও ৫০টি কাকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত কাকের দেহের নমুনা পরীক্ষা করে স্থানীয় প্রশাসন বার্ড ফ্লু রোগের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছে।

কেরলের হাঁসের শরীরে এই রোগের প্রমান পাওয়ার বিষয়ে কেরালার প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী কে রাজু জানিয়েছেন, বর্তমানে ৫০,০০০ টি হাঁসকে কালিং পদ্ধতিতে মেরে ফেলে এই রোগের সংক্রমণ রোধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। হাঁসের জন্য হাঁসপালকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থাও করা হবে।

Back to top button