fbpx
আন্তর্জাতিকটাইমলাইন

ভগবান রামচন্দ্র নেপালি আর অযোধ্যা ভারতে না, নেপালে অবস্থিত! দাবি কেপি শর্মা ওলির

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি (KP Sharma Oli) এর আগেই ভারতের (India) বিরুদ্ধে নেপালের (Nepal) সীমান্ত অতিক্রম করার অভিযোগ করেছিল। এবার তিনি ভারতের বিরুদ্ধে নেপালের সাংস্কৃতিক সীমালঙ্ঘনের অভিযোগ তুললেন। উনি ভগবান রামের জন্মভূমি অযোধ্যা নিয়ে এমন কথা বলে ফেললেন, যেটার না আছে মাথা আর না আছে পা। উনি অযোধ্যা যে ভারতে আছে সেটা মানেন না বলে জানিয়ে দিলেন। ওলি বলেম ভারতে যেই অযোধ্যা আছে সেটা নকল। আসল অযোধ্যা নেপালে আছে। নেপালি প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত সাংস্কৃতিক সীমালঙ্ঘনের জন্য নকল অযোধ্যার নির্মাণ করেছে। আসল অযোধ্যা আমাদের নেপালে আছে।”

ওলি কবি ভালুভক্ত আচার্য এর জন্ম জয়ন্তীতে নিজের সরকারি আবাসে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময় বলেন, নেপালে সাংস্কৃতিক দিক থেকে অত্যাচার করা হয়েছে। ঐতিহাসিক তথ্যকে বিকৃত করার চেষ্টা করা হয়েছে। আমরা সবাই এটা মানি যে, আমরা ভারতীয় রাজকুমার রামকে আমাদের সীতা দিয়েছিলাম। এরপর তিনি একটি চরম হাস্যকর মন্তব্য করেন।

উনি দাবি করে বলেন যে, আমরা ভারতের অযোধ্যার রাজকুমারের হাতে সীতাকে তুলে দিয়েছিলাম না। আমরা নেপালি রাজকুমারের হাতে সীতাকে তুলে দিয়েছিলাম। উনি জানা, অযোধ্যা নেপালের একটি গ্রাম যেটা বীরগঞ্জে আছে। ওলি বলেন, ‘ভারতে বানানো অযোধ্যা আসল না। আমাদের অযোধ্যাই আসল।” ওলি যুক্তি দিয়ে বলেন, যদি ভারতের অযোধ্যাই সত্যি হত, তাহলে সেখানকার রাজকুমার বিয়ে করার জন্য নেপালে কেন আসত?

আপনাদের জানিয়ে দিই, বিগত কয়েকমাস ধরে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি ভারত বিরোধিতায় মত্ত হয়েছেন। আর ওনার এই ভারত বিরোধিতায় ইন্ধন যোগাচ্ছে নেপালে থাকা চীনের রাজদূত। যদিও, ওনার এই ভারত বিরোধিতার জন্য ওনাকে ব্যাপক সমস্যার সন্মুখিন হতে হচ্ছে। নেপালে ওনার পদত্যাগের দাবি উঠেছে। এমনকি ওনার দলের নেতারাই ওনার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে।

Back to top button
Close