টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

বিজেপির নবান্ন অভিযানের অনুমতি দিল না লালবাজার! ভয় পেয়েছে মমতা দাবি সৌমিত্র খাঁ-এর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বিজেপিকে নবান্ন অভিযানের জন্য মিছিলের অনুমতি দিল না লালবাজার (lalbazar)। বিজেপির প্রতিনিধি মণ্ডল লালবাজারে অনুমতি চাওয়ার জন্য গেলে, তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনার পর বিজেপির সাংসদ তথা রাজ্য বিজেপির যুব মোর্চার প্রেসিডেন্ট সৌমিত্র খাঁ (Saumitra Khan) বলেন, মমতা ব্যানার্জী (Mamata Banerjee) ভয় পেয়েছে। তাই আমাদের মিছিলের অনুমতি দেয়নি পুলিশ। তবে আমাদের রোখা যাবে না। জানা গিয়েছে যে, হেস্টিংস ও রাজ্য বিজেপির সদর দফতর থেকে মিছিল করার অনুমতি মেলেনি।

আরেকদিকে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পরপর দুদিন বন্ধ থাকবে নবান্ন (Nabanna)। বিজেপির (Bharatiya Janata Party) নবান্ন অভিযানের আগেই আচমকাই রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এরজন্য একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করা হয়েছে। জানিয়ে দিই, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ৮ ই অক্টোবর বিজেপির তরফ থেকে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে বিজেপি নবান্ন অভিযানের ডাক দিয়েছে। আর সেইদিনই আচমকাই সচিবালয় বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পরপর দুদিন নবান্ন এবং রাইটার্স বন্ধ থাকবে। সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, রুটিন স্যানিটাইজেশনের জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সচিবালয়ের কর্মীদের এই দুদিন বিজ্ঞপ্তি জারি করে না আসার অনুরোধ করা হয়েছে।

বলে রাখি, বিজেপি আগামীকাল গেরিলা কায়দায় নবান্ন অভিযান করার কর্মসূচী রেখেছে। বিজেপির সাংসদ তথা রাজ্যের যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ জানিয়েছেন যে, সমস্ত শক্তি দিয়ে এই কর্মসূচী পালন করা হবে কোনও বাঁধাই মানা হবে না, যেই করেই হোক নব্বান ঘিরতে হবে।

বলে রাখি, করোনা মহামারীর কারণে প্রতি সপ্তাহের শনিবার ও রবিবার নবান্নে রুটিন স্যানিটাইজেশনের প্রক্রিয়া চলে। কিন্তু এই সপ্তাহে শনিবার আর রবিবারের বদলে বৃহস্পতি আর শুক্রবার এই রুটিন স্যানিটাইজেশনের প্রক্রিয়া রাখা হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠছে যে বিজেপির কর্মসূচির দিনেই কেন এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হল রাজ্যের তরফ থেকে? বিজেপি দাবি করেছে যে, আমাদের ভয়েই রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button