টাইমলাইনবিনোদন

ভারত মানেই সাপুড়েদের আড্ডাখানা! মার্কিনিদের নিজের দেশ চেনাচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: বলিউড থেকে হলিউডে পাড়ি জমিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (Priyanka Chopra)। সেখানেই এখন তাঁর কর্মভূমি। সংসারও পেতেছেন মার্কিনি পপ গায়ক নিক জোনাসকে বিয়ে করে। তবে মার্কিন মুলুকে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা কিন্তু নিজের দেশীয় সংষ্কার ভোলেননি। প্রতিটি উৎসব, অনুষ্ঠান নিজের বাড়িতে পালন করেন তিনি। বউয়ের ঠেলায় নিকও ভারতীয় আদব কায়দায় অভ‍্যস্ত হয়ে উঠেছেন।

নিজের বাড়িতে তো ভারতীয় রীতিনীতি ঢুকিয়ে নিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু অন‍্যান‍্য মানুষেরা? বেশিরভাগ বিদেশিদেরই নাকি ভারত নিয়ে অদ্ভূত সব ধারণা রয়েছে। আর সেসব ভ্রান্ত ধারণা মেটানোর উদ‍্যোগটাই নিজের কাঁধে নিয়েছেন ‘দেশি গার্ল’।


সম্প্রতি নিজেদের সদ‍্যোজাত মেয়ে মালতীকে বাড়িতে আনতে পেরেছেন নিক প্রিয়াঙ্কা। ১০০ দিন পর মেয়েকে কাছে পেয়েছেন তাঁরা। মেয়ের গৃহপ্রবেশের পর রীতি মেনে পূজাপাঠের আয়োজন করেছিলেন অভিনেত্রী। এমনটা প্রায়ই করে থাকেন তিনি।

এবার প্রিয়াঙ্কার মা মধু চোপড়া জানালেন, বিদেশিদের ভারতীয় রীতিনীতি সম্পর্কে সঠিক শিক্ষা দিতেই লস অ্যাঞ্জেলসের বাড়িতে পুজো আচ্চার আয়োজন করে থাকেন তাঁর মেয়ে। এরপরেই এক বিষ্ফোরক মন্তব‍্য করেন মধু।

তিনি বলেন, “আমাদের দেশ সম্পর্কে বিদেশিদের অনেক ভুল ধারণা রয়েছে। ওরা ভাবে আমাদের দেশে শুধু মহারাজা, হাতি আর সাপুড়ে রয়েছে। আমাদের কাছে শ্রেষ্ঠ শিক্ষাব‍্যবস্থা, সেরা প্রযুক্তি আর স্বাস্থ‍্য ব‍্যবস্থা রয়েছে। সেগুলো ওদের কে শেখাবে? আমাদের সব রীতিনীতি, সংষ্কৃতির নেপথ‍্যে ভাল উদ্দেশ‍্য রয়েছে। প্রিয়াঙ্কা সেগুলো বিশ্বাস করে আর মেনেও চলে।”

পাশাপাশি ওই সাক্ষাৎকারে জামাই নিকেরও প্রশংসা করেন মধু চোপড়া। মেয়ের থেকে জামাই প্রায় দশ বছরের ছোট। অনেকেই বিয়ের সময়ে দুজনের বয়সের এই পার্থক‍্যটার নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন। কিন্তু পাত্তা দেননি মধু। তাঁর ‘মিষ্টি’ জামাই নাকি শুধু মেয়েকে খুশি রাখতে পারে।

Related Articles

Back to top button