টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবর্ধমানকলকাতা

মাধ্যমিকে জয়জয়কার জেলার, বাঁকুড়া-বর্ধমানের থেকে অনেকটাই পিছিয়ে কলকাতা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রকাশিত হল মাধ্যমিক ২০২২-র পরীক্ষার ফলাফল। আজ সকাল ৯টার সময় সাংবাদিক বৈঠক করে ফল ঘোষণা করলেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। পর্ষদের ওয়েবসাইটে ফলাফল জানা যাবে সকাল ১০টা থেকে। এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে দু’জন। বাঁকুড়ার রামহরিপুর রামকৃষ্ণ মিশন উচ্চবিদ্যালয়ের অর্ণব ঘড়াই এবং বর্ধমান সিএমএস বিদ্যালয়ের রৌনক মণ্ডল। দু’জনেরই প্রাপ্ত নম্বর ৬৯৩। মোট ৯৯ শতাংশ নম্বর পেয়েছে দুজন। মোট ১১৪ জন স্থান পেয়েছে প্রথম দশে।

৬৯২ নম্বর পেয়ে যুগ্ম দ্বিতীয় হয়েছে মালদহের কৌশিকী সরকার এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের রৌনক মণ্ডল। যুগ্ম তৃতীয় হয়েছে পশ্চিম বর্ধমানের অনন্যা দাশগুপ্ত এবং পূর্ব মেদিনীপুরের দেবশিখা প্রধান। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯১। চতুর্থ হয়েছে মোট চার জন। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯০। চতুর্থ স্থান গ্রহনকারীরা আলিপুরদুয়ার, মালদহ, হুগলির ও কলকাতার ছাত্রছাত্রী। কলকাতা থেকে প্রথম হয়েছে শুতর্ষি ত্রিপাঠী। পঞ্চম হয়েছে ১১ জন। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৯। ষষ্ঠ হয়েছে ৬ জন। তাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৮।  সপ্তম হয়েছে ১০ জন। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৭। অষ্টম হয়েছে মোট ২২ জন। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৬। নবম হয়েছে ১৫ জন। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৫। দশম হয়েছেন ৪০ জন। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৪।

করোনার অতিমারির প্রভাবে এর আগের দু’বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়নি। অবশেষে অনেক বাধা বিঘ্ন পেরিয়ে এই বছর আবারও হয় পরীক্ষা। গত ৭ মার্চ শুরু হয় মাধ্যমিক পরীক্ষা। এ বছর পরীক্ষা দিয়েছিল ১১ লক্ষেরও বেশি ছাত্রছাত্রী। যার মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ৬ লক্ষের বেশি। ছাত্রদের থেকে প্রায় ১১ শতাংশ বেশি। পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৭৯ দিনের মধ্যেই ফল প্রকাশ করল পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

Allahabad: Class 10 and 12 students celebrate after checking their results on their mobile phones soon after the results of UP Board exams were declared, in Allahabad on April 29, 2018. (Photo: IANS)

ইতিমধ্যেই মধ্যশিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে আগামী বছরের পরীক্ষার সূচি পাঠানো হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরের কাছে। পর্ষদ সূত্রে খবর, সূচি অনুমোদিত হলে আজই সাংবাদিক সম্মেলন করে ঘোষণা করা হবে। জানা যাচ্ছে আগামী বছর ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকেই মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু করতে চায় পর্ষদ। ২০২২-এর তুলনায় পরীক্ষার সময়সীমা বেশ খানিকটা এগিয়ে আনতে চাইছে পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

Related Articles

Back to top button