টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

প্রতিটা পোস্টারে আমার মুখ কালো করে দিয়েছে, কালীপুজোর উদ্বোধনে গিয়ে ক্ষোভ মমতার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ কেন্দ্রের সঙ্গে আদায় কাঁচকলায় সম্পর্ক তো ছিল প্রথম থেকেই। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (mamata banerjee) দিল্লী সফরে গিয়ে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বদের সঙ্গে বৈঠক করে এলেও, ক্রমশ যেন বিরোধী জোট গঠনের রসায়নটা বদলে যাচ্ছে। দিল্লী থেকে ফেরার পর থেকেই মুখ্যমন্ত্রী হোক কিংবা অভিষেক, সকলের মুখেই শোনা গিয়েছে কংগ্রেসের সমালোচনা। কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে একটা সুযোগও যেন ছাড়ছে না বঙ্গ তৃণমূল।

শহরের একাধিক কালীপুজো উদ্বোধন করতে দেখা গিয়েছিল সোমবার দিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এন্টালির বিধায়ক স্বর্ণকমল সাহার জানবাজার সম্মিলিত কালীপূজা সমিতির উদ্বোধন দিয়েই এই কাজ শুরু করেন তিনি। আর সেই পুজো উদ্বোধনে দাঁড়িয়েই একদিকে কেন্দ্র সরকার আর অন্যদিকে বিজেপিকে তুলোধোনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস থেকে পেট্রোল ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রকে একহাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পেট্রোল, ডিজেল, গ্যাসের দাম দিনকে দিন বাড়িয়েই যাচ্ছে, আর ত্রিপুরা গেলেই মানুষের মাথা না হলে তাঁদের গাড়ি ফাটাচ্ছে। উত্তর প্রদেশ, অসমে কাউকে ঢুকতে দিচ্ছে না। আমি গোয়া যেতেই সেখানে কালো পতাকা নিয়ে গো ব্যাক শ্লোগান দিচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে যত বিক্ষোভ ওরা দেখাবে, ওরা তত বেশি করেই গোল্লায় যাবে’।

সেখানে দাঁড়িয়েই কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তোপ দেগে মুখ্যন্ত্রী বলেন, ‘কংগ্রেসের গাড়ি কিংবা পোস্টারে কোন সমস্যা করা হয়নি। কিন্তু আমাদের প্রত্যেকটা পোস্টারে আমার মুখটাকে পুরো কালো করে দেওয়া হয়েছিল। আজকে তোমাদের হাতে কালি আছে বলে কালি করছো, আগামী দিনে পাবলিক ভোট বাক্সে তোমাদের ব্ল্যাকলিস্টেড করে দেবে’।

মুখ্যন্ত্রী আরও বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদী সরকারে আসার পর থেকে কংগ্রেস কোন লড়াইই করেনি। শুধু ইলেকশনের সময় বড় বড় কথা বলে। ওরা কম্প্রোমাইজ করলেও, আমরা করিনি। তাই কংগ্রেসের উপর আর নির্ভর করা যাবে না। ওঁরা যতই যা বলুক না কেন, বাংলায় আমাদের বিরুদ্ধে বিরোধীতা করবে, আর অন্য জায়গায় চাইবে আমরা ওদের সাপোর্ট করব? সেটা তো হয়না’।

Related Articles

Back to top button