টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে পরিষেবা না দিলে লাইসেন্স বাতিল হবে হাসপাতালের! হুঁশিয়ার মমতা ব্যানার্জির

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ স্বাস্থ্যসাথী (Swasthya Sathi) কার্ড নিয়ে এক বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। রাজ্যবাসির চিকিৎসার সুবিধার জন্য সম্প্রতি আবারও নতুন রূপে চালু করা হয়েছে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড। প্রায় ১০ কোটি রাজ্যবাসিকেই এই কার্ডের আয়ত্তায় আনা হয়েছে। সেইমত সমস্ত নথি জমা নিয়ে, চলছে কার্ড বিলির কাজও।

কিছুদিন আগেই আমরা দেখেছি আর পাঁচজন মানুষের মত লাইনে দাঁড়িয়ে নিজের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড সংগ্রহ করেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বারবার রাজ্য সরকার বলে এসেছে এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড গ্রাহকের চিকিৎসার ১০০ শতাংশই দেবে সরকার। কিন্তু বেশকিছু ক্ষেত্রে আবার দেখা গিয়েছে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে গেলেও, চিকিৎসা না করেই ফিরিয়ে দিচ্ছে বেশ কিছু নার্সিংহোম। এই নিয়ে রাজ্যের শাসক দলকে নিয়ে কম সমালোচনা করেনি বিরোধীদলগুলো। এবার এই বিষয়ে এক কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জি।

রানাঘাটের হবিবপুরের সভা থেকে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পের এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড প্রসঙ্গে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দিলেন মমতা ব্যানার্জি। তিনি বললেন, ‘অনেক সময় দেখছি অনেক বড় বড় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে চিকিৎসা দিতে চাইছে না, আমরা তাদের সঙ্গে মিটিং-এ বসে বলব এই প্রকল্প করতেই হবে। অন্যদিকে জেলার ছোট ছোট নার্সিংহোমগুলোর উদ্দেশ্যে বলছি, এরপরও যদি কেউ স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডে চিকিৎসা দিতে না চায়, তাহলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করার ক্ষমতা কিন্তু সরকারের হাতে আছে’।

নির্বাচনের আগে রাজ্য সরকারের চালু করা এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ডকে নানাভাবে কটাক্ষ করেছে বিজেপি শিবির। কেন্দ্র সরকারের আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প বাংলায় চালু করতে না দেওয়ার জন্য নানাভাবে আক্রমণের শিকার হয় বাংলার শাসক দল। এমনকি বিজেপি নির্বাচনে জয়লাভ করলে, বাংলায় আয়ুষ্মান ভারত চালু করারও ঘোষণা করেছে বিরোধী শিবির।

Back to top button