টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

অমিত শাহের সফরের আগে রোল কল মুখ্যমন্ত্রীর, ২৯ তারিখ বিধায়ক-সাংসদদের জন্য জারি হল হুইপ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলবদলের পালায় জেরবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেই কারণে অমিত শাহ আসার ঠিক একদিন আগে দলের সমস্ত সাংসদ ও বিধায়কদের কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে ডাকা হল। তবে কি উদ্দেশ্য নিয়ে তৃণমূলের সমস্ত বিধায়ক আর সাংসদদের কালীঘাটে ডাকা হয়েছে সেটা এখনো স্পষ্ট নয়।

প্রসঙ্গত, শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছেড়ে বেরিয়ে আসার পর থেকে তৃণমূলে চরম অস্তিরতা দেখা দিয়েছে। প্রায় দিনই দলের বিধায়ক, নেতারা বেসুরো গেয়ে দল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়ে যোগ দিচ্ছেন। এছাড়াও অমিত শাহের সভায় তৃণমূলের একঝাঁক নেতা আর সাংসদদের বিজেপিতে যোগ দেওয়া সম্ভাবনা আছে। সেই কারণেই হয়ত দলে কারা আছেন, আর কারা নেই সেটা জানতে এই বিশেষ ডাক এসেছে কালীঘাট থেকে।

কদিন আগে হুগলির পুরশুড়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন যে, যারা যারা যেতে চান চলে যেতে পারেন। আর কালীঘাটের বৈঠকেও হয়ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের বিধায়ক এবং সাংসদদের এই বার্তাই দিতে চলেছেন। তবে তড়িঘড়ি এই মিটিং ডাকা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একহাতে নিয়েছে বিরোধীরা। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী কটাক্ষ করে বলেছেন যে, ৩০ জানুয়ারি বঙ্গ সফরে আসছেন অমিত শাহ, আর তাঁর আগে রোল কল করে নিচ্ছেন মাননীয়া।

আরেকদিকে, বিজেপির তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে যে অমিত শাহের সভায় অন্তত ৪ জন তৃণমূল বিধায়ক বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। আরেকদিকে, বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীও সরাসরি চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেছেন যে, ১৬ ফেব্রুয়ারির পর তৃণমূলে বড়সড় ঝটকা লাগবে। তিনি এও বলেছেন যে, ব্যানার্জী পরিবারে তিনি পদ্ম ফোটাবেন।

জানা গিয়েছে যে, আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি অথবা তাঁর আগেপরে রাজ্যে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করতে পারে কমিশন। আর তারপরেই রাজ্যে আদর্শ আচরণবিধি লাগু হয়ে যাবে, যার জন্য বিজেপির নেতারা অনেকদিন ধরেই দাবি করে আসছে।

Back to top button