টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

দেড় বছরে মমতার থেকে ৩৪টি উপহার পেয়েছেন শুভেন্দু, বই ছাপিয়ে প্রকাশ করবেন বিরোধী দলনেতা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : বঙ্গ রাজনীতি এখন তোলপাড়। পরপর কয়েকটি ঘটনায় উল্টে যাচ্ছে সমস্ত হিসাব। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) সঙ্গে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) শুক্রবারের সৌজন্য সাক্ষাৎ ঘিরে তৈরি হয়েছে জল্পনা। এরপর আবার শিশির অধিকারির এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একে অপরের সম্পর্কে সৌজন্যমূলক মন্তব্য আর দিব্যেন্দু অধিকারির অভিষেক বন্দ্যেপাধ্যায় চা খাওয়ার আমন্ত্রণ সেই জল্পনায় উস্কানি দেয়। তবে সৌজন্য সাক্ষাতের চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই আবারও রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করতে শুরু করেছেন বিরোধী দলনেতা।

এবার বিগত দেড় বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকে যে যে ‘উপহার’ পেয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী সেই কথা শোনালেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক। বললেন, ‘এখনও পর্যন্ত গত দেড় বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে উপহার দিয়েছেন ৩৪টি মিথ্যা মামলা। সব মামলাগুলিই হয়েছে ২০২১ সালের ৫ মে’র পর।’ রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন কি বাত অনুষ্ঠান শুনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই মন্তব্যই করলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দু এদিন আরও বলেন, ‘আমি শুনছি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাকি ৫ তারিখ আবার দিল্লি যাবেন। উনি পৌঁছানোর আগে রাষ্ট্রপতি, উপরাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জানার দরকার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তর কোরিয়ার শাসকের মতো এখানে কীভাবে চালাচ্ছেন। আমার ঘনিষ্ঠ লোকেদের নামে মামলা করেন, নন্দীগ্রামের লোকদের নামে মামলা করেন। কথায় কথায় আমার নির্বাচনী এজেন্ট ছিলেন বলে মেঘনাদ পালের মতো একজন সজ্জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করেন। প্রলয় পাল একটি ভাল পরিবারের লোক, তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। একটাই কারণ, বহুদলীয় গণতন্ত্রে তাঁরা কেউ তৃণমূল করেননি, তাঁরা বিজেপির সঙ্গে আছেন, নরেন্দ্র মোদিকে সমর্থন করেন এবং শুভেন্দু অধিকারীকে জিতিয়েছেন।”

সাংবিদকদের প্রশ্নে তিনি জানান, ‘আমি আগামী মঙ্গলবার আমার উপর দেওয়া মামলাগুলি একটি পুস্তক আকারে ইংরেজি, হিন্দি ও বাংলায় প্রকাশ করব সাংবাদিকদের সামনে। আগামী বুধবার আমি রাষ্ট্রপতি-সহ গোটা ভারতে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার বিরোধী দলনেতার উপর এই সরকারি আগ্রাসনের তথ্য সহ যে ব্রশিওর প্রকাশ করব, সেটি পাঠাব। অন্যান্য রাজ্যেও সংসদীয় গণতন্ত্রে মানুষের জানা উচিত যে বাংলায় কী হয়।’

Related Articles