টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিশেষকলকাতা

নিরলস সাহিত্য সাধনার জেরে মুখ্যমন্ত্রীর মুকুটে নয়া পালক, পেলেন আকাদেমি পুরস্কার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আজ সোমবার 25 শে বৈশাখ উপলক্ষ্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ‘কবি প্রণাম’ নামক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর। আর এই অনুষ্ঠানে বাংলা আকাদেমি পুরস্কারে ভূষিত হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘নিরলস কবিতার সাধনা’র জন্যই এদিন মুখ্যমন্ত্রীর মুকুটে জুড়লো নতুন এক পালক। বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য এ বছর বাংলা একাডেমির রিট্রিভার্সিপ পুরস্কারে সম্মানিত হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর ‘কবিতা বিতান’ কাব্যগ্রন্থের জন্য এদিন তাঁকে এই বিশেষ পুরস্কারের জন্য বেছে নেওয়া হয়। এছাড়াও এদিন সমাজের একাধিক বিশেষ ব্যক্তিত্বকে অন্যান্য পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। অনুষ্ঠান চলাকালীন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেন, “সমাজের বিভিন্ন ফিল্ডে কাজের পাশাপাশি বাংলা সাহিত্য জগতে সাধনা করে চলেছে, এমন ব্যক্তিত্বকে আমরা এবছর বাংলা আকাদেমি পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেই উপলক্ষ্যে প্রথম বছরে দাঁড়িয়ে আমরা সকলের সঙ্গে পরামর্শ করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই পুরস্কারে ভূষিত করার সিদ্ধান্ত নিলাম। এক্ষেত্রে তাঁর ‘কবিতা বিতান’ কাব্যগ্রন্থের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে এই বিশেষ সম্মানে সম্মানিত করা হলো।”

‘কবি প্রণাম’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের একাধিক নেতা সহ স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।তবে এদিন মুখ্যমন্ত্রী নিজের হাতে পুরস্কার গ্রহণ করেননি বরং তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন  এদিন রিট্রিভার্সিপ পুরস্কার তুলে দেন ব্রাত্য বসুর হাতে।

এদিন বাংলা সাহিত্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য রবীন্দ্র পুরস্কার তুলে দেওয়া হল সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের হাতে। এছাড়াও, বিজ্ঞান বিষয়ক লেখক বিকাশ সিংহ এবং ফ্রাঁস ভট্টাচার্যকেও এই সম্মানে ভূষিত করা হয়। এদিন অনুষ্ঠান চলাকালীন সন্তোষ ট্রফিতে বাংলা দলের হয়ে খেলা দুই ফুটবলারের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

Back to top button