টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিশেষভারতরাজনীতি

নেতাজি জয়ন্তীর সকালেই একের পর এক ট্যুইট মমতার, কেন্দ্রের কাছে করলেন বড় দাবি

বাংলাহান্ট ডেস্ক : নেতাজির জন্মদিনের সকালেই একের পর এক ট্যুইট করে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুকে নিয়ে একাধিক পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয় এই দিনটিকে জাতীয় ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করার দাবিও তিনি করেন কেন্দ্র সরকারের কাছে।

এদিন সকালে ট্যুইট করে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুকে জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি লেখেন, ‘নেতাজি দেশপ্রেম, উদ্যোম, নেতৃত্ব এবং একতার এক মূর্ত প্রতিক ছিলেন। তিনি প্রজন্মের পর প্রজন্মকে প্রেরণা জুগিয়ে এসেছেন, ভবিষ্যতেও জোগাবেন’। তিনি আরও একটি ট্যুইটে লেখেন, ‘নেতাজি একজন যথার্থই দেশনায়ক ছিলেন। দেশের মানুষের অখন্ডতাতেই বিশ্বাস করতেন তিনি।’ আজকের দিনটি পশ্চিমবঙ্গে ‘দেশনায়ক দিবস’ হিসেবে পালনের কথাও ঘোষণা করেন মমতা।

একই সঙ্গে নেতাজিকে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়ে কী কী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে রাজ্য সে ব্যাপারেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন রাজারহাটে আজাদ হিন্দ ফৌজের নামে একটি মনুমেন্ট তৈরি করা হবে। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছে। এবার আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সঙ্গেও সংযুক্ত করা হবে সেটিকে। এই সমস্ত পরিকল্পনাগুলি বাস্তবায়নের জন্য একটি কমিটিও গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

How did Subhash Chandra Bose get the title 'Netaji'?

এখানেই শেষ নয়, নেতাজির জন্মদিনটিকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নেতাজিকে জাতীয় ক্ষেত্রে সম্মান দিতে দেশনায়ক দিবসকে জাতীয় স্তরেই পালনের কথাও বলেছেন তিনি।

অন্যদিকে, আজ শহরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। ন্যাশানাল লাইব্রেরিতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে ২ টি গ্যালারির উদ্বোধন করবেন তিনি। নেতাজির জন্মদিনে ট্যুইট করে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীও। নেতাজির জন্মদিনটিকে ‘পরাক্রম দিবস’ হিসেবেই পালন করছে কেন্দ্র। আজ রাজ্যসরকারের তরফেও রয়েছে নেতাজিকে নিয়ে একাধিক কর্মসূচি। এলাকায় এলাকায় জন্মদিন পালন ছাড়াও শ্যামবাজার থেকে ধর্মতলায় নেতাজি মূর্তির পাদদেশ অবধি পদযাত্রা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিগত কয়েকদিন ধরেই দিল্লিতে প্রজাতন্ত্র দিবসের শোভাযাত্রায় বাংলার ট্যাবলো বাতিলের ইস্যুতে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। বিতর্কের জল গড়িয়েছে আদালত অবধিও। গতকালই নেতাজির জন্মদিন উপলক্ষে একটি তাঁকে সম্মান জানিয়ে একটি বিশেষ ট্রাম উদ্বোধন করেন মদন মিত্র। সেই অনুষ্ঠানে রাজ্যের এই পদক্ষেপকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে উচিত জবাব বলেও দাবি করতে শোনা যায় তাঁকে।

Related Articles

Back to top button