স্বাস্থ্যের অবনতির জন্য বুদ্ধবাবুর ঔদ্ধত্যই দায়ি, মুখ্যমন্ত্রী সবসময় খোঁজ নিচ্ছেন : কুণাল ঘোষ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : গতকাল থেকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী (Former CM Buddhadeb Bhattacharjee)। বাইল্যাটারাল নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করছে একাধিক মহল। এরই মধ্যে ‘বুদ্ধবাবুর ঔদ্ধত্যে বহু ক্ষতি হয়েছে’ বলে মন্তব্য করলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। পাশাপাশি জানালেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের খোঁজ খবর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee)।

কুণাল ঘোষ এদিন বলেন, ‘বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। কিন্তু এই আরোগ্য কামনার সঙ্গে যাঁরা আদিখ্যেতা করে তাঁকে মহাপুরুষ সাজাচ্ছেন, তাঁদের সঙ্গে একমত নই। কারণ বুদ্ধবাবুর জমানায় সিপিএম অনেক খারাপ কাজ করেছে। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের ঔদ্ধত্যে বহু ক্ষতি হয়েছে। অত্যন্ত অসুস্থ অবস্থায় রয়েছেন। হাসপাতালে দেখতে গিয়ে কার্যকরী কাজ হবে না। বুদ্ধবাবুর স্বাস্থ্য নিয়ে দায়িত্বশীল অভিভাবকের মতো খোঁজ খবর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী।’ দাবি তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের।

kunal

গতকাল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরই তাঁকে দেখতে ছুটে গিয়েছেন রাজ্যপাল থেকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। রবিবার সকালে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে দেখতে উডল্যান্ডস হাসপাতালে যান বামফ্রন্ট চেয়ারম্য়ান বিমান বসু।এদিন তাঁকে দেখতে যান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

হাসপাতালে আসেন, সূর্যকান্ত মিশ্র ও নৌশাদ সিদ্দিকিরা। কুণাল ঘোষের মন্তব্যের পাল্টা আক্রমণ করেছেন সুকান্ত মজুমদার। এদিন তিনি বলেন, “বুদ্ধবাবুর দিকে আঙুল তুলে কেউ চোর বলতে পারবেন না। তাঁর আরোগ্য কামনা করলে কারও যদি আদিখ্যেতা মনে হয়, তাহলে সেটা তাঁর রুচির বিষয়।”

এখনও ১০০ শতাংশ ভেন্টিলেশনে সাপোর্টে রয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। যদিও সঙ্কট এখনও কাটেনি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, জ্ঞান ফিরেছে। ডাকলে সাড়া দিচ্ছেন। তাঁকে রাইলস টিউব দিয়ে তরল খাবার খাওয়ানো হচ্ছে। ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। উডল্যান্ডস হাসপাতাল সূত্রে খবর, একদিকে বুদ্ধবাবুর শ্বাসকষ্টজনিত পুরনো সমস্যা রয়েছে। তার ওপর কোভিডে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং সবশেষে এই বাইল্য়াটারাল নিউমোনিয়া।