বঙ্গহোম পেজ

ফের জীবন গেলো দীঘার সমুদ্র সৈকতে

 

বাংলা হান্ট ডেস্ক : স্বাধীনতা দিবসের সকালে মন্দারমণির সৈকতে টহল দিতে দিতে ২ নুলিয়া মইদুল ও শাহিদ আলি প্রথম দেখতে পান বেচাবাবুর দেহ। এই দেহ দিঘায় স্নান করতে নেমে তলিয়ে যাওয়া ব্যক্তির দেহ যা উদ্ধার করা হলো মন্দারমণি সৈকত থেকে।

 

সকালে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছিল পুলিস। জানা গিয়েছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের বাসিন্দা, ওই ব্যক্তির নাম বেচা পাত্র, বয়স ৪০ বছর।

 

পুলিস সূত্র থেকে জানা যায়, ৪ বন্ধুর সঙ্গে জামালপুরের আজাহারপুর থেকে দিঘা বেড়াতে এসেছিলেন বেচাবাবু। পেশায় গাড়িচালক তিনি। মঙ্গলবার পূর্ণিমার ভরা কোটালের মধ্যেই বন্ধুদের সঙ্গে সৈকতে স্নান করতে নেমেছিলেন তিনি। কিছুক্ষণ পর হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে যান। মৃতের বন্ধুরা বলেছেন, “ভেবেছিলাম স্নান সেরে বেচা কাউকে না বলেই হোটেলে ফিরে এসেছে। কিন্তু হোটেলে ফিরে জানতে পারি সে হোটেলে আসেইনি। এর পর এলাকায় কিছুক্ষণ খোঁজাখুঁজি চলে। রাত পর্যন্ত হোটেলে না ফেরায় দিঘা থানায় নিখোঁজ ডায়েরি লেখানো হয়েছিল।”

 

তারপর মন্দারমনি থেকে দেহ উদ্ধার করার পর স্থানীয় থানায় খবর জানালে সেইখানে থেকে খবরটি দিঘা থানায় যায়, তারপর বেচা বাবুর বন্ধুরা তার দেহ সনাক্ত করেন

Sapnapriya Ghoshal

Jouralist as profession, Passionate Writer, Book and theatre lover.

Leave a Reply

Close
Close