টাইমলাইনবিশেষভারত

টাকার অভাবে মেলেনি অ্যাম্বুলেন্স, ২৫ কিমি কাঁধে করে ছেলের দেহ নিয়ে বাড়ি ফিরলেন বাবা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : প্রয়াগরাজে মানবতাকে লজ্জায় ফেলে দেওয়ার মতো ঘটনা সামনে এসেছে। টাকার অভাবে, অ্যাম্বুলেন্স না পাওয়ায় একজন বাবাকে তার 14 বছরের ছেলের লাশ কাঁধে নিয়ে 25 কিলোমিটার দূরে বাড়ি পৌঁছতে হল। এই দৃশ্য যে দেখছে, তার বুক কেঁপে উঠছে। ছেলেটি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার পর বাবা-মা অজ্ঞান অবস্থায় ছেলেকে নিয়ে এসআরএন হাসপাতালে পৌঁছেছিলেন। এখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

খবর অনুযায়ী, বাবার কাছে পর্যাপ্ত টাকা ছিল না যাতে তিনি একটি ব্যক্তিগত গাড়ি ভাড়া করে লাশ নিয়ে বাড়ি যেতে পারেন। বাড়ি থেকে যা টাকা এনেছেন তা ছেলের চিকিৎসায় খরচ হয়ে গিয়েছিল। ঘটনাটি স্বরূপানি নেহেরু হাসপাতালের (এসআরএন) বলা জানা গেছে। ছেলের মরদেহ কাঁধে নিয়েই পায়ে হেঁটে কারচানা থানা এলাকার গ্রামে চলে যান অসহায় বাবা। প্রাইভেট গাড়ি ভাড়া করার মতো টাকা তার কাছে ছিল না। জানা গেছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃতদেহ নিয়ে যাওয়ার জন্য গাড়ি দিতে অস্বীকার করে। এই মর্মান্তিক ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতেও ক্রমশ ভাইরাল হচ্ছে।

এ নিয়ে হাসপাতাল প্রশাসনের ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মানুষ। জানা গেছে, ছেলের লাশ কাঁধে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার সময় বাবা যখন ক্লান্ত হয়ে পড়ছিলেন, তখন মা তার “কলিজার টুকরো” মৃত ছেলেকে কাঁধে নিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। একইভাবে তিনি কারচানা থানা এলাকার দেহা গ্রামে পৌঁছান নিজ বাড়িতে। বিষয়টি জানতে পেরে কমিশনার বিজয় বিশ্বাস পন্ত পুরো বিষয়টির তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবও নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ঘটনার ভিডিও শেয়ার করেছেন। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, সুযোগ-সুবিধা নেই, চিকিৎসাও নেই, এটাই বিজেপি লজ্জা।

Related Articles

Back to top button