টাইমলাইনভারত

অবিশ্বাস্য! 21 বছর বয়সেই হাইকোর্টের কনিষ্ঠতম বিচারপতির পথে ময়াঙ্ক প্রতাপ সিং

বাংলা হান্ট ডেস্ক : অদম্য ইচ্ছা শক্তি ও মেধা থাকলে শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে অসম্ভব কাজকে সম্ভব করে তোলা যায়। তাই তো মাত্র নয় বছরের পিএইচডি, নয় বছর বয়সে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পাস এ রকম খবর আমরা প্রায়ই শুনি তবে এবার সমস্ত প্রতিকূলতাকে জয় করে কোনও বাধাই যে বাধাই নয় তা সত্যিই করতে চলেছেন রাজস্থানের একুশ বছর বয়সী যুবক নায়ক প্রতাপ সিংহ। দেশের সর্বকনিষ্ঠ হাইকোর্টের বিচারপতি পদে আসিন হতে বলেছেন তিনি।

ভারতীয় বিচার ব্যবস্থায় এক নজিরবিহীন ঘটনা বলাই যায়। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই কার্যত ঝড় উঠেছে দেশ জুড়ে। কারণ এর আগে জুডিসিয়াল সার্ভিসের পরীক্ষার জন্য ন্যূনতম তেইশ বছর বয়স হওয়া বাধ্যতামূলক ছিল কিন্তু গত বুধবার এই পরীক্ষাতেই উত্তীর্ণ হয়ে 21 বছরের মায়াঙ্ক প্রতাপ সিং এক নতুন ইতিহাস গড়তে চলেছেন।

কারণ চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে রাজস্থান হাইকোর্টের তরফে সেই পরীক্ষার বয়স কমিয়ে একুশ বছর করা হয়েছে আর প্রথম পরীক্ষা দিয়েই কার্যত ঐতিহাসিক নজির গড়লেন মায়াঙ্ক। তবে শুধুমাত্র সাধারণ ভাবে পাশ করা নয় সেরার সেরা তকমা পেয়েছেন তিনি। যদিও এখনও অবধি বিচারপতি তকমা পাওয়ার জন্য তাঁকে চোদ্দো বছর অপেক্ষা করতে হবে কারণ ভারতীয় সংবিধানের নিয়ম অনুযায়ী 35 বছর বয়সের আগে কেউ বিচারপতি পদে আসীন হতে পারেন না।

অন্যদিকে এই পরীক্ষায় সফল হয়ে যথেষ্টই খুশি মায়াঙ্ক এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা। মাত্র একুশ বছর বয়সে কী ভাবে একটি কঠিন পরীক্ষা তিনি অতিক্রম করলেন? তা সকলকেই আশ্চর্য করেছে তবে লিখিত পরীক্ষার থেকে ইন্টারভিউও বেশ কঠিন হয়েছিল বলে জানিয়েছেন মায়াঙ্ক। যদিও তাঁর কাছে কোনও বিষয়টি কঠিন ছিল না বলে মনে করছেন আইন মহলের একাংশ।

Back to top button