টাইমলাইনবিনোদনভিডিও

তাজমহল নয়, সমস্ত সঞ্চয় খরচ করে স্ত্রী ময়নার জন‍্য বিলাসবহুল ‘হাভেলি’ বানিয়েছেন সম্রাট

বাংলাহান্ট ডেস্ক: প্রিয়তমা স্ত্রী মুমতাজের জন‍্য শ্বেতপাথরের তাজমহল বানিয়েছিলেন শাহজাহান। আর অভিনেতা সম্রাট মুখোপাধ‍্যায় (Samrat Mukherjee) বানালেন ‘হাভেলি’ (Haveli)। না, তার জন‍্য অবশ‍্য শিল্পীদের আঙুল কাটতে হয়নি তাঁকে। শুধু শেষ হয়ে গিয়েছে জীবনের সমস্ত সঞ্চয়। তা হোক, স্ত্রী ময়না মুখোপাধ‍্যায় (Mayna Mukherje) আর দুই সন্তানের জন‍্য এক নিশ্চিন্ত আশ্রয় তো বানানো গিয়েছে।

জিতের ‘ইসমার্ট জোড়ি’ শোয়ে অন‍্যতম প্রতিযোগী জুটি সম্রাট ময়না। টেলিপাড়ার এই জনপ্রিয় দম্পতি এর আগের বার বিতর্কে জড়িয়েছিল। বাড়ির অমতে বিয়ে করেছিলেন দুজনে। প্রথম দিকে অবস্থাও খুব একটা ভাল ছিল না তাঁদের। জেনেশুনে বাধ‍্য হয়েই তিন তিনবার গর্ভপাত করিয়েছিলেন ময়না। তাঁদের এই স্বীকারোক্তি শুনে নিন্দায় সরব হয়েছিলেন নেটিজেনরা।


এবার ময়না জানালেন, তাঁর জন‍্য সমস্ত সঞ্চয় খরচ করে এক দারুন বাড়ি বানিয়ে দিয়েছেন সম্রাট। অভিনেতা বলেন, তিনি চিরদিনই সঞ্জয় দত্তের খুব বড় ভক্ত। তাঁর বাড়িটা দেখে চমক লেগেছিল সম্রাটের। বাড়ির মধ‍্যেই আস্ত একটা জিম, রুফটপ গার্ডেন। তখনি তাঁর মনে হয়েছিল, খাস কলকাতার বুকে এমন একটা বাড়ি বানালে কেমন হয়?

যেমন ভাবা তেমন কাজ। সমস্ত সঞ্চয় খরচ করে এক বিলাসবহুল বাড়ি বানিয়ে ফেলেন সম্রাট। কিন্তু এখন সমস‍্যা হয়েছে, বাড়ির রক্ষণাবেক্ষণের পেছনে অনেকটাই খরচ পড়ে যায় সম্রাটের। ইসমার্ট জোড়ির দৌলতে দর্শকরাও সুযোগ পান সম্রাট ময়নার বাড়ির এক ঝলক দেখার।


বিরাট কাঠের গেট খোলার পরেই মেলে বাড়িতে ঢোকার অনুমতি। বসার ঘর থেকে জিম কিংবা রুফটপ গার্ডেন সব কিছুতেই সম্রাট ময়নার সুন্দর রুচির ছাপ। আরেক প্রতিযোগী সোনালি চৌধুরী জানান, তিনিও ছবি দেখেছেন ওই বাড়ির। প্রশংসা করতেই অভিনব আমন্ত্রণও পেয়েছেন দম্পতির কাছ থেকে, ‘আও কভি হাভেলি পে!’

এর আগে ইসমার্ট জোড়ির মঞ্চে এসে সম্রাট জানান, তাঁরা তিনবার পরিবার পরিকল্পনা করেছিলেন। আর তিনবারই ময়নাকে গর্ভপাত করাতে হয়েছিল। পরিবারের অমতে বিয়ে করেছিলেন তাঁরা। সংসার শুরু করেছিলেন একটি এক কামরার ফ্ল‍্যাটে। প্রথম বার যখন ময়না অন্তঃসত্ত্বা হন তখন তাঁদের এমন আর্থিক সঙ্গতি ছিল না যে একটা বাচ্চাকে বড় করতে পারবেন।

তাই বাধ‍্য হয়ে গর্ভপাত করাতে হয় ময়নাকে। অভিনেত্রী জানান, তৃতীয় বার গর্ভপাত করাতে গিয়ে খুব কষ্ট হয়েছিল তাঁর। এই চিন্তাও মনে এসেছিল যে, সারা জীবন ধরে কি এটাই করে যেতে হবে তাঁকে? এখন এত শারীরিক ধকলের পর পরবর্তীকালে আর মা হতে পারবেন তো? ময়নার সে ভয় অবশ‍্য অমূলক ছিল। কারণ এখন ফুটফুটে দুই সন্তানের মা তিনি।

Related Articles

Back to top button