fbpx
টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

কলকাতায় ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো চালু হতেই শুরু হয়েছে টিকিট চুরির ধুম, ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ কলকাতায় প্রথমদিনেই বড়োসড়ো ক্ষতির সম্মুখীন হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো (East-West Metro)। হিসাব মিলল না ৩৫৩টি টোকেনের। এতে করে বিভিন্ন মহলে বিভিন্ন রকম সমালোচন ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। ভালোবাসার দিনে এই চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রথম থেকেই নড়েচড়ে বসল মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। মেট্রোরেলের কর্তৃপক্ষ জানায়, একটি টিকিটের  দাম ৫ টাকা হলেও তা বানাতে খরচা পড়ে যায় প্রায় ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকা।

সেক্ষেত্রে প্রথমদিনেই বেশকিছুটা ক্ষতির সম্মুখীন হতে হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোকে। উত্তর-দক্ষিণ মেট্রো রেলের টিকিটের থেকে এই টিকিট দেখতে অনেকটা অন্যরকম। তাই তাঁদের ধারণা ভালোবাসার দিনে চালু হওয়া এই মেট্রোয় উপস্থিত কিছু যাত্রী তাঁদের স্মৃতিচারণের উদেশ্যে টিকিট নিয়ে গেছেন। এদিন দিনের শেষে হিসাব মিলিয়ে দেখেন তাঁরা ৩৫৩ টি টিকিট নেই।

যাত্রীদের এইরূপ আচরণে তাই প্রথম দিনই চুরি গেল ৩৫৩ টি টিকিট। তবে এই টিকিট চুরির বিষয়টা একদমই নতুন নয় মেট্রো কর্তপক্ষের কাছে। কারণ প্রতিদিন উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোর ক্ষেত্রেও এই বিষয়টি দেখতে পাওয়া যায়। অনেকসময় যাত্রীরা তাঁদের নিজেদের কাছে রেখে দেবার জন্য টিকিট কাটার পর সেই টিকিট আর ফিরিয়ে দেয় না। নিছক মজা করে তা নিজেদের কাছেই রেখে দেন।
কিন্তু যাত্রীদের এই নিছক আনন্দে ক্ষতি হচ্ছে মেট্রো কর্তপক্ষের। বিরাট বড়ো ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে তাঁরা। কলকাতা মেট্রো কর্তৃপক্ষ থেকে জানায়, প্রতিমাসে চুরি হয়ে যাচ্ছে প্রায় কয়েক লক্ষ টাকার টোকেন৷

রিপোর্ট অনুযায়ী দিনে একটি ট্রেন থেকে গড়ে ৩টি টোকেন চুরি হয়ে যাচ্ছে৷ প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৩০০টি মেট্রো ট্রেন চলাচল করে ৷ সুতরাং খোয়া যাচ্ছে প্রায় ৯০০টি টোকেন৷ হিসাব করলে দেখা যায় এক মাসে প্রায় ২২ হাজার টাকার টোকেন চুরি হয়ে যাচ্ছে। আবার ১টি টোকেনের দাম ২০ টাকা হলে , মাসে কলকাতা মেট্রোর ক্ষতি হচ্ছে প্রায় ৪-৫ লক্ষ টাকা৷ এই প্রসঙ্গে বলা বাহুল্য গতবছর দুর্গা পুজোর মাসে অমিল পাওয়া যায় প্রায় ৩০ হাজার টোকেন।

Back to top button
Close
Close