টাইমলাইনভারতরাজনীতি

টিকটক ব্যান হওয়ায় কর্মহীন হয়ে পড়বে ভারতের লক্ষ লক্ষ যুবক যুবতীঃ সঞ্জয় নিরুপম, কংগ্রেস নেতা

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ টিকটক (Tiktok) নিয়ে এবার সংশয় প্রকাশ করলেন কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপম (Sanjay Nirupam)। নিষেধাজ্ঞা জারীর পর থেকেই টিকটক নিয়ে কিন্তু জল্পনা হয়েই চলেছে। এবার সেই দলে নাম লেখালেন মহারাষ্ট্রে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপমও। ভারত চীনে সীমা বিবাদের পরবর্তীতে ভারত সরকারের গৃহীত এই সিদ্ধান্তে খুশি দেশের সিংহভাগ নাগরিকই।

টিকটকের বর্তমান অবস্থান কোথায়?
ভারতে বহুল পরিমাণে জনপ্রিয় এই টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করার পর থেকেই বিভিন্ন দিকে উঠেছে নানান জল্পনা। সামনা সামনি ব্যঙ্গ বিদ্রূপ থেকে শুরু করে স্যোশাল মিডিয়ায়ও ট্রোলের শিকার হয়েছেন তথাকথিত বহু টিকটক স্টার। মঙ্গলবার এমনকি ভারতের গুগল প্লে স্টোর থেকে সরিয়েও দেওয়া হল এই টিকটক। এবার থেকে কোন ভারতীয় নাগরিক নিষেধাজ্ঞা তুলে না নেওয়া অবধি এই অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন না। পাশাপাশি পুরনো টিকটক ব্যবহারকারীরাও আর এটি ব্যবহার করতে পারবেন না।

টিকটক বিষয়ক তথ্য
সোমবার আইটি মন্ত্রক জানিয়েছিল, অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস প্ল্যাটফর্মের বেশ কয়েকটি অ্যাপ থেকে ভারতের বিভিন্ন তথ্য দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। সেই মতো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের আওতাধীন ভারতীয় সাইবার ক্রাইম সমন্বয়ও সেই অ্যাপ গুলকে নিষেধাজ্ঞা জারীর পক্ষে সম্মতি জানায়। যদিও, ভারতে টিকটকের প্রধান কর্মকর্তা নিখিল গান্ধী জানিয়েছেন, টিকটক ব্যবহারকারীদের সমস্ত তথ্য সম্পূর্ণ গোপনীয়তার সাথে রাখা হয়। এই তথ্য কোন বিদেশী সংস্থাকে বা চীন সরকারকে দেওয়া হয় না।

সঞ্জয় নিরুপমের ট্যুইট
তবে সবকিছুর উর্দ্ধে গিয়ে সঞ্জয় নিরুপম এক ট্যুইট করে লক্ষ লক্ষ মানুষের কর্মহীন হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তিনি ট্যুইটে বলেছেন, ‘বর্তমানে চীন অ্যাপস নিষিদ্ধ করা সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। তবে টিকটক নিষিদ্ধ হওয়ার ফলে আমাদের দেশের লক্ষ লক্ষ যুবক যুবতী বেকার হয়ে পড়বে। সস্তার, খাঁটি এবং ঘরোয়া বিনোদন বন্ধ হয়ে যাবে। টিকটক স্টারদের প্রতিভার আকস্মিক সমাপ্তি ঘটবে।’

Back to top button