টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

বীরভূমের প্রথম অনুষ্ঠানেই দেখা গেল না মিঠুনকে! অসুস্থ না অন্য কারণ? তুঙ্গে জল্পনা

বাংলাহান্ট ডেস্ক : কেষ্টর (Anubrata Mandal) দুর্গে প্রথম দিনেই অনুপস্থিত ‘মহাগুরু’ মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakrabarty)। যা দেখে চরম হতাশ বিজেপি কর্মীরা সমর্থকরা। দলের ভিতরেই প্রশ্ন উঠছে, বিজেপির তারকা নেতা মিঠুনের সামনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এড়াতেই কি দলীয় কর্মীদের সামনে তাঁকে আনা হল না? তবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের (Sukanta Majumdar) দাবি, দীর্ঘ কর্মসূচি রয়েছে ‘মহাগুরু’র। তাঁর শারীরিক অসুস্থতার জন্য এই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত রয়েছেন মিঠুন।

জানা যাচ্ছে, রবিবার সকালে বোলপুরের কাছারিপট্টির বেসরকারি লজে ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে হাজির থাকার কথা ছিল মিঠুন চক্রবর্তীর। বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে বসে প্রধানমন্ত্রীর মন কি বাত শুনবেন তিনি। এমনই পরিকল্পনা ছিল। সকাল ১১টা থেকে অনুষ্ঠান শুরু হয়। বহু দূর থেকে কর্মী-সমর্থকরা এসেছিলেন। কিন্তু বেলা ১২টা বেজে গেলেও অনুষ্ঠানে আসেননি মিঠুন। যা দেখে বেশ হতাশ বিজেপি কর্মীরা।

শনিবার রাতে আসানসোলের অনুষ্ঠান সেরে বোলপুরে আসেন মিঠুন চক্রবর্তী ও সুকান্ত মজুমদার। দলীয় কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক হয় বিজেপি কর্মীর বাড়িতে বসে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ৯৫তম ‘মন কি বাত’ শোনা হবে। সেই অনুযায়ী প্রচারও করে দেওয়া হয়। এদিন সকাল থেকে ওই দলীয় কর্মীর বাড়িতে জড়ো হন বিজেপি কর্মীরা। ‘মহাগুরু’কে দেখতে লজের বাইরেও জমায়েত করেন বহু সাধারণ মানুষ। অনুষ্ঠান শুরু হয়ে গেলেও দেখা পাওয়া যায়নি তারকা।

মিঠুনের অনুপস্থিতি নিয়ে দলের ভিতরেই একাধিক প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। দলীয় কর্মীদের একাংশ বলছেন, বীরভূমে বিজেপির প্রচুর অন্তর্দ্বন্দ্ব রয়েছে। মিঠুন এলে তাঁর সামনেই এই কোন্দল প্রকাশ পেয়ে যেত। তাই পরিকল্পনা করেই এই অনুষ্ঠান এড়িয়ে গেলেন ‘মহাগুরু’। অবশ্য রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার দাবি করেন, ‘গত ৫ দিন ধরে মিঠুন চক্রবর্তীর আমাদের সঙ্গে সফর করছেন। এদিন তাঁর অন্য একটি অনুষ্ঠান রয়েছে তাই তিনি এখানে আসতে পারেননি। তাঁর শারীরিক অসুস্থতা রয়েছে।’

Related Articles