টাইমলাইনভারত

রিপোর্টঃ বাদ যাবেনা কেউ, করোনার ভ্যাকসিন দেশের কোনায় কোনায় পৌঁছে দিতে আলাদা করে ফান্ড বানিয়েছে মোদী সরকার

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ভারতে (India) করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ৭৭ লক্ষেরও বেশি হয়ে গিয়েছে। আরেকদিকে, এই মহামারীতে এখনো পর্যন্ত ১ লক্ষ ১৬ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ গিয়েছে। আর এই সঙ্কটের সময়ে গোটা দেশবাসীই করোনার ভ্যাকসিনের অপেক্ষা করছে। আর এরমধ্যে প্রশ্ন উঠছে যে, করোনার ভ্যাকসিনের জন্য ঠিক কত টাকা খরচ হতে পারে? আর সরকার এই নিয়ে কি প্রস্তুতি নিয়েছে?

জানিয়ে দিই, মোদী সরকার (Narendra Modi Government) করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে নিয়েছে। সরকার গোটা দেশে এখনই টিকাকরণের প্রস্তুতিতে মাঠে নেমেছে। আর এর জন্য মোদী সরকার আলাদা করে ৫১ হাজার কোটি টাকার ফান্ড বানিয়েছে।

নিজের নাম না জানানোর শর্তে ব্লুমবার্গকে একটি সুত্র জানিয়েছে যে, দেশের প্রতি ব্যাক্তি পিছু ৭ থেকে ৮ ডলার ভারতীয় মুদ্রা হিসেবে ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা খরচ হবে। সুত্র জানিয়েছে যে, চলতি আর্থিক বছরের জন্য এই অর্থের যোগান রাখা হয়েছে, আর এই কাজের জন্য ফান্ডের কোনও অভাব পড়বে না। যদিও, এই বিষয়ে এখনো কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের তরফ থেকে কোনও আধিকারিক বয়ান জারি করা হয়নি।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সম্প্রতি বলেছিলেন যে, আমরা ভ্যাকসিন শুধু প্রতিবেশী দেশগুলো পর্যন্ত সীমিত রাখব না, আমরা ভ্যাকসিন গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দেব। উনি বলেছিলেন যে, ভ্যাকসিনের বিতরণ প্রণালী আরও মজবুত করার জন্য বিশ্বের আইটি প্ল্যাটফর্মের উপর কাজ করতে হবে আমাদের। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন আয়োজনের মতই টিকাকরণের প্রণালী আয়োজন করার পরামর্শ দিয়েছেন।

জানিয়ে দিই, কিছুদিন আগেই সিরাম ইনস্টিটিউটের সিইও অদর পুনাওয়ালা ট্যুইট করে বলেছিলেন যে, গোটা দেশে ভ্যাকসিন অভিযান চালানোর জন্য সরকারকে ৮০ হাজার কোটি টাকা খরচ করতে হবে। আরেকদিকে, বায়োকন লিমিটেডের চেয়ারম্যান কিরণ মজুমদার বলেছিলেন যে, ভ্যাকসিন কেনার পর সবথেকে বড় সমস্যা হবে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া।

Back to top button