টাইমলাইনভারত

১৬ বছরের জামাইয়ের সঙ্গে শ্বাশুড়ির প্রেম! লোক জানাজানি হতেই চরম সিদ্ধান্ত নিল যুগল

বাংলাহান্ট ডেস্ক : একেই বলে প্রেম। বাড়মের জেলায় একটি গ্রামে সকাল সকালই গাছ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় এক স্ত্রী ও এক পুরুষের দেহ পাওয়া যায়। জানা যায় তাদের শ্বাশুড়ি-জামাইয়ের সম্পর্ক। এবং দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে জানা যাচ্ছে। এই ব্যাপার জানাজানি হওয়ার পরই আত্মহননের পথ বেছে নেন দুজনে।

ঠিক কী হয়েছিল ঘটনা?

রাজস্থানের বাড়মের জেলার ঘটনা। জানা যাচ্ছে, শ্বাশুড়ির প্রেমে পরেন জামাই। এই খবর ছড়িয়ে যায় গোটা এলাকায়। এরপরেই আত্মহত্যার সিদ্ধান্তে নেন যুগলে। বাড়মের-রামসর হাইওয়ের উপর অবস্থিত একটি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। সকালে দুজনকে গাছ থেকে ঝুলতে দেখে পুলিশে খবর দেন গ্রামবাসীরা। পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌঁছায়। গাছ থেকে দেহ নামিয়ে বাড়মের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, কোরাবা গ্রামের ২২ বছরের হোতারাম ছিলেন ৩৮ বছরের দরিয়া দেবির জামাই। বছর খানেক আগে খরন্টিয়া গ্রামে দরিয়া দেবির মেয়ের সঙ্গে বিবাহ হয় হোতারামের। কিন্তু এরই মধ্যে শ্বাশুড়ি জামাইয়ের মধ্যে শুরু হয় প্রেমের সম্পর্ক। কিছুদিন পর থেকেই সবায়ের সন্দেহ হওয়া শুরু হয়। এরপরই মৃত্যুকেই বেছে নেন দুজনে। জানা যাচ্ছে দুজনে রেশন আনতে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। তারপরের দিন দুজনকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

কী বলছে পুলিশ?

স্থানীয় থানার পুলিশ আধিকারিক জানান, গ্রামে একটি গাছ থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহের খবর পেয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ কর্মীরা এলাকায় পৌঁছে যান। দেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। জানা যাচ্ছে, ময়নাতদন্তের পরই পরিবারের হাতে দেহ তুলে দেওয়া হবে। যদিও এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয় নি।

Related Articles

Back to top button