টাইমলাইনবিনোদন

সপ্তাহে মঙ্গলবার একত্রিত হোক হিন্দুরা, তবেই বাড়বে একতা, হিন্দুদের কট্টরপন্থী হওয়ার ডাক মুকেশ খান্নার

বাংলাহান্ট ডেস্ক: তাঁর অভিনীত চরিত্র ‘শক্তিমান’ এর মতো মুকেশ খান্না (Mukesh Khanna) বাস্তবেও স্পষ্টবাদী। সোশ‍্যাল মিডিয়ায় অত‍্যন্ত সক্রিয় থাকেন তিনি‌। আর সেখানেই বিভিন্ন বিষয়ে নিজস্ব মতামত জানিয়ে পোস্ট করেন তিনি। সমসাময়িক রাজনৈতিক বিষয় নিয়েও যথেষ্ট খোঁজখবর রাখেন মুকেশ খান্না‌। আর সেসব নিয়ে মতামতও প্রকাশ করেন তিনি।

এই মুহূর্তে পয়গম্বর বিতর্ক অন‍্যতম ইস‍্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। বিভিন্ন রাজ‍্যে অশান্তির খবর পাওয়া যাচ্ছে। এমতাবস্থায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশে বিশেষ বার্তা দিয়েছেন মুকেশ খান্না। মুসলিম এবং ইহুদীদের মতো হিন্দুদেরও একদিন একত্রিত হওয়ার ডাক দিয়েছেন তিনি।


হিন্দুদের একত্রিত হওয়ার ডাক

সোশ‍্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের একজোট হওয়ার ডাক দিয়েছেন মুকেশ খান্না। তাঁর বক্তব‍্য, শুক্রবার জুম্মার নমাজ রয়েছে, রবিবার ‘মাস’ আছে। কিন্তু হিন্দুদের কী আছে? হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কাছে সপ্তাহে এমন কোন আছে যেদিন গোটা দেশের হিন্দুরা একত্রিত হয়ে একটাই কাজ করতে পারেন? প্রশ্ন মুকেশের।

পর্দার শক্তিমানের দাবি, হিন্দুদের মধ‍্যে একতা নেই। এটাই তাদের দুর্বলতা, যা এই সময়ে যথেষ্ট চিন্তাদায়ক একটা বিষয়। তিনি বলেন, “সপ্তাহে একটা দিন আর একটা সময় নির্ধারণ করা হোক। সেদিন অন‍্য ধর্মের মতো হিন্দুরাও নিজেদের এলাকায় একত্রিত হয়ে কোনো ধর্মীয় রীতি পালন করবে। এতে তাদের একতা বাড়বে।”

হিন্দুদের মধ‍্যে একতা নেই

একটি ভিডিও বার্তায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ স্বরে মুকেশ বলেন, হিন্দুদের নিজেদের রাষ্ট্রেই নিজেদের কোনো দিন নেই? গোটা দেশের মুসলিম ধর্মবলম্বী মানুষ একই দিনে জুম্মার নমাজ পড়ে। এই বিষয়টার প্রশংসা করে মুকেশ খান্না বলেন, তিনি শুনেছেন সারা বিশ্বে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সংখ‍্যা ১৯০ কোটি। তারা সকলে একত্রিত হয়ে থাকেন। কিন্তু ১০০ কোটি হিন্দুদের মধ‍্যে একতাই নেই।

মুকেশ বলেন, তিনি সপ্তাহের মধ‍্যে মঙ্গলবার দিনটি বাছার পরামর্শ দিয়েছেন। এদিন এক কি আধ ঘন্টা সময় নিজের পরিবারের সঙ্গে দিন হিন্দুরা। সকলে মিলে একত্রিত হলে অন‍্য ধর্মের মতো হিন্দুদেরও শক্তি বাড়বে বলেই মত মুকেশের।

পূর্ব পরিকল্পিত দাঙ্গা

এখানেই শেষ নয়। সম্প্রতি বিভিন্ন রাজ‍্যে সাম্প্রদায়িক অশান্তির প্রসঙ্গে বর্ষীয়ান অভিনেতা বলেন, “দাঙ্গাটা পূর্ব পরিকল্পিত ছিল। কোনো ধর্মই হিংসার প্রচার করতে চায় না। রাজনৈতিক উসকানিতে এসব হয়। ওদের ভোট চাই। মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় বাংলায় কাদের খুশি রাখেন সেটা দেখা যায়।”

মুকেশ খান্নার স্পষ্ট কথা, কোনো ধর্মকে ছোট বড় বলতে চান না তিনি। তিনি শুধু একতা দেখতে চান। মুসলিমদের কট্টরপন্থী বলা হয় এবং হিন্দুদের সাম্প্রদায়িক বলা হয়। তাই হিন্দুদের প্রতি তাঁর বার্তা, “কট্টর হন। তবে নিজের ধর্মের জন‍্য, অন‍্য ধর্মকে নীচু করার জন‍্য নয়।”

Related Articles

Back to top button