টাইমলাইনভারতরাজনীতি

কেরলে দুই নাবালিকার যৌন শোষণের পর হত্যা, অভিযুক্ত CPI(M) কর্মী

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ কেরলে (Kerala) এক দলিত মা তাঁর দুই মেয়ের হত্যার বিচারের জন্য আবারও সরকারের দারস্থ হয়েছেন। বছর ৩ আগে দুই বোনকে যৌন নির্যাতন করে ভালিয়ারে তাদের হত্যা করা হয়েছিল। সোমবার আবারও সেই বিচারের জন্য তাদের মা ন্যায় বিচারের জন্য আন্দোলন শুরু করেছেন।

অত্যাচারিত দুই নাবালিকার মা জানিয়েছেন, এই মামলায় অভিযুক্ত ৬ জনের মধ্যে ৫ জনকে ধরা হলেও, ১ জন এখনও অবধি ঘুরে বেড়াচ্ছে। মৃত দুই মেয়ের সৎ বাবা জানিয়েছেন, পুলিশ অপরাধীদের রক্ষা করছে। তাদের পক্ষ নিয়ে কথা বলছে।

বিরোধী দলীয় নেতা রমেশ চেনিথালা এবং বিজেপির রাজ্য সভাপতি কে সুরেন্দ্রন পালক্কাদ জেলায় মৃত মেয়েদের প্রতিবাদী মা এবং পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, উত্তরপ্রদেশের হাতরাশের ঘটনার চেয়েও এটি খারাপ ঘটনা। যারা হাতরাসের মামলায় কুমিরের অশ্রু বর্ষণ করেছিলেন, তারা আজ নীরব কেন? এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে বিচার না পাওয়ায় ওই মহিলাকে আবারও আন্দোলন করতে হচ্ছে।

ঘটনাটি ২০১৭ সালের। মাত্র ৫২ দিনের মধ্যেই ১২ বছর বয়সী এবং ৮ বছর বয়সের দুই বোনের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় ভালিয়ার থেকে। ঘটনার সময় তাদের পিতা মাতা কেউই বাড়িতে ছিলেন না। গত মাসেই কেরালার পিনারাই বিজয়ন সরকার হাইকোর্টের সামনে স্বীকার করেছিলেন এই মামলাটির যথাযথভাবে তদন্ত করা হয়নি। এই মামলাটির পুনরায় তদন্তের প্রয়োজন।

মৃতা মেয়েদের মা জানিয়েছেন, কিছুদিন আগেই কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন (Pinarayi Vijayan) জানিয়েছিলেন এই ঘটনার সিবিআই তদন্ত করা হবে। কিন্তু এখনও তা করা হল না। তাই বাধ্য হয়ে আবারও আন্দোলনের পথ বেছে নিতে হল তাঁকে। তবে অভিযোগ উঠেছে এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বেশিরভাগ অপরাধীরাই সিপিএম দলের সদস্য। যার কারণে দলের অভ্যন্তরে শোরগোল শুরু গেছে।

Back to top button